Ultimate magazine theme for WordPress.

সহবাসে কি শরীরচর্চা হয়?

0

পৃথিবীতে মানব অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে অনস্বীকার্য ভূমিকা রেখে চলেছে নারী-পুরুষের সহবাস বা যৌনমিলন। এটি কেবল আনন্দ নয়, শরীরচর্চার মাধ্যমও হতে পারে। আপনি জেনে বিস্মিত হবেন, ব্যায়ামে যেমন ক্যালরি ক্ষয় হয়, তেমনটি যৌনকর্মে লিপ্ত হলেও ঘটে। কিন্তু প্রশ্ন হলো, এ সময় কতটুকু ক্যালরি পোড়ে?

গবেষকদের মতে, সহবাস হালকা বা পরিমিত শরীরচর্চার সমতুল্য হতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে, দৌড়ালে বা জিমে ব্যায়াম করলে যত ক্যালরি ক্ষয় হয়, যৌনকর্মে ততটা হয় না। এর পরিমাণ নির্ভর করে ব্যক্তির ওজন, যৌনকর্মের স্থায়িত্ব ও অন্যান্য কিছু বিষয়ের ওপর। সহবাসে শুধু ক্যালরি পোড়ে না, স্বাস্থ্যের আরো অনেক উপকারও হয়। এখানে সাম্প্রতিক গবেষণার আলোকে বিষয়টি তুলে ধরা হলো।

একটি গবেষণা বলছে, সহবাসের সময় পুরুষদের গড়ে ১০১ অথবা প্রতি মিনিটে ৪.২ ক্যালরি পুড়তে পারে। অন্যদিকে নারীদের গড়ে ৬৯ অথবা প্রতি মিনিটে ৩.২ ক্যালরি পুড়তে পারে। সুস্থ ও অল্প বয়সি নারী-পুরুষের ওপর গবেষণাটি চালানো হয়। এই গড় নির্ণয়ে ফোরপ্লে থেকে অর্গাজম পর্যন্ত সময় বিবেচনা করা হয়েছে। ফোরপ্লে হলো শরীরের বিভিন্ন অংশে আদর-সোহাগে উত্তেজিত করে তোলা। অন্যদিকে অর্গাজম হলো যৌনসুখের চূড়ান্ত সীমা।

মন্ট্রিলে অবস্থিত ইউনিভার্সিটি অব কুইবেকের ডিপার্টমেন্ট অব এক্সারসাইজ সায়েন্সের অধ্যাপক অ্যান্টনি কারেলিস বলেন, ‘সহবাসের সময় শরীর থেকে যে শক্তি ব্যয় হয় তা ব্যায়ামের তুলনায় উল্লেখযোগ্য নয়।’ এই গবেষণায় যারা অংশ নিয়েছেন তাদের ট্রেডমিলেও শরীরচর্চা করতে বলা হয়েছে। দেখা গেছে, পুরুষদের প্রতি মিনিটে ৯.২ ক্যালরি এবং নারীদের প্রতি মিনিটে ৭.১ ক্যালরি পুড়েছে। অর্থাৎ ট্রেডমিলে শরীরচর্চায় সহবাসের তুলনায় দ্বিগুণ ক্যালরি পুড়েছে।

আরেকটি গবেষণায়ও অনুরূপ ফল পাওয়া গেছে। বয়স ৩০ এর ঘরে রয়েছে এমন পুরুষদের ছয় মিনিটের সহবাসে মাত্র ২১ ক্যালরি পুড়তে পারে। ফোরপ্লে বাদ দিলে সহবাসের গড় স্থায়িত্ব হলো পাঁচ থেকে ছয় মিনিট। ব্যক্তিভেদে এর চেয়ে কম বা বেশি ক্যালরি ক্ষয় হতে পারে।

যদিও সহবাসের সময় এর চেয়ে বেশি ক্যালরি পোড়ানোর উপায় রয়েছে। এজন্য আপনাকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। আপনার পজিশন ওপরে হলে বেশি নড়াচড়া হবে, ফলে শক্তির ক্ষয়ও বেশি হবে। যদি চান নারীর বেশি ক্যালরি পুড়ুক, তাহলে কিছুক্ষণ পর আপনাকে নিচের পজিশনে চলে যেতে হবে। এভাবে উভয়েই উপকৃত হবেন। ডা. কারেলিসের মতে, সহবাসের সময় ঘাম নিঃসরণের মানে হলো বেশি ক্যালরি ক্ষয় হওয়া।

ইন্ডিয়ানা ইউনিভার্সিটি স্কুল অব পাবলিক হেলথের সেক্সুয়াল অ্যান্ড রিপ্রোডাক্টিভ হেলথের অধ্যাপক ডেবি হার্বেনিক সহবাসের সময় ক্যালরি পোড়াতে এমন সেক্স পজিশনে যেতে অনুৎসাহিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘সহবাসের অনেক পজিশন রয়েছে। কিন্তু লোকজনের প্রতি আমার পরামর্শ হলো, সেই পজিশনে সহবাস করুন যা উভয়কেই আনন্দ দেয়। এ সময় কত ক্যালরি পুড়বে তা বিবেচনা করবেন না।’ তার মতে, ফোরপ্লে করতে করতে শরীরচর্চা করে নিলে ক্যালরি পোড়ানোর পাশাপাশি যৌনমিলনও বেশ উপভোগ্য হতে পারে।

সহবাসের উল্লেখযোগ্য শারীরিক ও মানসিক উপকারিতা হলো: ঘুমের মান বাড়ায়, রক্তচাপ কমায়, ব্যথা উপশম করে, পুরুষদের প্রোস্টেট ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়, নারীদের পেলভিস পেশী শক্তিশালী করে, রোগ দমনের ক্ষমতা বাড়ায়, মানসিক চাপ ও উদ্বেগ কমায়, মেজাজ ভালো রাখে এবং আত্মবিশ্বাস বাড়ায়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »