Ultimate magazine theme for WordPress.

শীর্ষ রাজনীতিবিদ, সরকারি কর্মকতাদেরও ডোপ টেস্টের সুপারিশ

0

শীর্ষ রাজনীতিবিদ, সরকারি কর্মকর্তা, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ নানা শ্রেণি-পেশার কর্মকর্তাদের ডোপ টেস্টের আওতায় আনার সুপারিশ করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

বৈঠকে জানানো হয়, ২০১৯ সালের তুলনায় ২০২০ সালে দেশে মামলার সংখ্যা ১৬ দশমিক ৭ শতাংশ কমেছে। বর্তমান আইজিপি (বেনজীর আহমেদ) দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই মামলার সংখ্যা কমেছে। বিষয়টিকে অপরাধ কমার প্রবণতা বলে উল্লেখ করা হয়েছে। সংসদীয় কমিটির বৈঠকে পুলিশের উপস্থাপিত একটি প্রতিবেদনে এ দাবি করা হয়েছে।

পুলিশের প্রতিবেদনে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো দাবি করে বলা হয়, গত এক বছরের মামলার পরিসংখ্যান ও অপরাধের তুলনামূলক বিশ্লেষণে বিষয়টি আরও স্পষ্ট হবে। বর্তমান আইজিপি ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে দায়িত্ব নেওয়ার পর বিট পুলিশিং কার্যক্রম আরও গতিশীল করেন বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে ঘটনা ঘটার আগেই প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় বলেও প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, গত ২০১৯ সালে দেশে দুই লাখ ২৫ হাজার ৬৮৪টি মামলা হয়েছে। আর ২০২০ সালে মামলার সংখ্যা এক লাখ ৮৭ হাজার ৯২৬টি। এ বছরে ৩৭ হাজার ৭৫৮টি অর্থাৎ ১৬ দশমিক ৭ শতাংশ কমেছে। অপরাধ প্রবণতার এ ধারা ২০২১ সালে অব্যাহত আছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৯ সালে ডাকাতি মামলার সংখ্যা ছিল ৩৫০টি। ২০২০ সালে তা কমে হয় ৩০২টি। খুনের মামলা ২০১৯ সালে তিন হাজার ৫৬৩টির থেকে কমে ২০২০ সালে হয় তিন হাজার ৫৩৯টি। অপহরণ ২০১৯ সালের ৫৯৮টি থেকে কমে ২০২০ সালে হয় ৪৮৬টি। এক্ষেত্রে ডাকাতি মামলা ১৩.৭ শতাংশ, খুনের মামলা ৩ শতাংশ ও অপহরণ মামলা ১৮.৭ শতাংশ কমেছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০২০ সালে ৫ লাখ ৫৬ হাজার ৭০০ আসামি গ্রেফতার করা হয়েছিল। ২০২১ সালের প্রথম ছয় মাসে গ্রেফতার হয়েছে দুই লাখ ৯৯ হাজার ৯৫৩ জন। আসামি গ্রেফতারের হারও ঊর্ধ্বমুখী বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০ সালের থেকে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত তিন কোটি ৩৯ লাখ ৪০ হাজার ১৭ পিস ইয়াবা, ৫ লাখ ৫১ হাজার ৮৫৭ বোতল ফেনসিডিল, ৩০৮ কেজি হেরোইন, ৫৩ হাজার ১৪ কেজি গাঁজা, দুই হাজার ২৬৩টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »