Ultimate magazine theme for WordPress.

প্রথম সংবাদ সম্মেলনে যা বললো তালেবান

0

প্রথমবারের মতো সংবাদ সম্মেলন করেছে তালেবান। মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট) সংগঠনটির মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ ক্যামেরার সামনে প্রথমবারের মত কথা বলেন।
কাবুলে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বিশ বছরের সংগ্রামের পর আমরা আফগানিস্তানকে মুক্ত করেছি এবং বিদেশিদের বহিষ্কার করেছি। গোটা জাতির জন্য এটা গর্বের মুহূর্ত।
তালেবান মুখপাত্র বলেন, আফগানিস্তান যাতে একটা যুদ্ধ ক্ষেত্র বা সংঘাতের দেশ না হয় সেটা আমরা নিশ্চিত করতে চাই। আমাদের বিরুদ্ধে যারা লড়াই করেছে, তাদের সবাইকে আমরা ক্ষমা করেছি। আমরা শত্রুতার অবসান চাই। আমরা ঘরে ও বাইরে কোথাও কোনো শত্রু চাই না। কাবুলে আমরা কোন বিশৃঙ্খলা চাই না।
তালেবান এখন আর বিশ বছর আগের সেই তালেবান নেই উল্লেখ করে জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, বিশ বছর আগেও আমাদের দেশ মুসলিম রাষ্ট্র ছিল। আজও আছে। কিন্তু অভিজ্ঞতা, পরিপক্বতা এবং দৃষ্টিভঙ্গির বিচারে বিশ বছর আগের তালেবানের সংগে আজকের তালেবানের বিশাল তফাত রয়েছে।
“আমরা এখন যেসব পদক্ষেপ নেবো তার সংগে সেসময়কার তফাত রয়েছে। এটা বিবর্তনের ফসল।”
আফগানিস্তান আল-কায়দা যোদ্ধাদের আশ্রয়স্থল হয়ে ওঠার ঝুঁকি আছে কি-না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, আফগানিস্তান কোনো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ঘাঁটি হবে না- আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে আমরা এই নিশ্চয়তা দিচ্ছি।
তালেবান নিয়ন্ত্রিত এলাকায় অপহরণ ও হত্যার খবর প্রসংগে তালেবান মুখপাত্র বলেন, দেশজুড়ে পূর্ণ নিরাপত্তা বজায় রয়েছে। কেউ কাউকে অপহরণ করতে পারবে না। প্রতিদিন আমরা নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও জোরদার করবো। আমরা চাই না কেউ দেশ ছেড়ে যাক। সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করা হয়েছে। কোনো রকম শত্রুতা বা প্রতিশোধ নেওয়া হবে না।
যারা বিদেশিদের জন্য অনুবাদকের কাজ করেছে বা বিদেশিদের সাথে চুক্তিতে কাজ করেছে তাদের প্রতি ভবিষ্যত আচরণ সম্পর্কে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে মি. মুজাহিদ বলেন, কারোর বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেওয়া হবে না।
“কেউ কারোর বাসার দরজায় টোকা মেরে জিজ্ঞেস করবে না ‘আপনি কাদের সাথে কাজ করতেন?”
তিনি আশ্বাস দেন, তারা নিরাপদ থাকবে। কাউকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে না, কাউকে হয়রানি করা হবে না।
তিনি বলেন, যারা এদেশে বড় হয়ে উঠেছেন তারা এদেশেরই সন্তান। আমরা চাই না তারা চলে যাক। তারা আমাদের সম্পদ।
সূত্র: বিবিসি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »