Ultimate magazine theme for WordPress.

শিগগিরই এয়ার বাবলের আওতায় ফ্লাইট চালুর উদ্যোগ

0

করোনার সংক্রমণ রুখতে দীর্ঘ সময় ভারতসহ কয়েকটি দেশের সঙ্গে আকাশপথে যোগাযোগ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। অন্যদিকে ভারতও ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সব আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিলের সময়সীমা বাড়িয়েছে। তবে চিকিৎসাসহ বিশেষ প্রয়োজনে ভ্রমণের জন্য এবার ভারতের সঙ্গে সীমিত পরিসরে ফ্লাইট চালুর চিন্তা করছে সরকার। এয়ার বাবলের অধীনে ফ্লাইট চালুর বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ নিয়ে প্রস্তুতি নিতেও শুরু করেছে এয়ারলাইনসগুলো।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ভারতের সঙ্গে এয়ার বাবল চুক্তির আওতায় ফ্লাইট চালুর বিষয়ে এরই মধ্যে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। আগস্টের কোনো একটা সুবিধাজনক সময়ে ফ্লাইট শুরু করার প্রস্তাব রয়েছে। সীমিত আকারে ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হলে পরবর্তী সময়ে ভারতের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবে মন্ত্রণালয়।

জানা গেছে, এয়ার বাবল চুক্তির আওতায় ভারতে সপ্তাহে ২৮টি ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি রয়েছে বাংলাদেশী এয়ারলাইনসগুলোর। এর মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ১৩টি, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের ১৪টি এবং একটি ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি রয়েছে নভোএয়ারের। অন্যদিকে প্রতি সপ্তাহে ২৮টি ফ্লাইট পরিচালনা করার অনুমতি রয়েছে ভারতের পাঁচ এয়ারলাইনস এয়ার ইন্ডিয়া, ভিস্তারা, ইন্ডিগো, স্পাইসজেট ও গোএয়ারের।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) মো. কামরুল ইসলাম বণিক বার্তাকে বলেন, এয়ার বাবল চুক্তির আওতায় ভারতে সপ্তাহে ১৪টি ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি রয়েছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের। ভারতের চেন্নাই ও কলকাতা রুটে ফ্লাইট পরিচালনার প্রস্তুতি রয়েছে ইউএস-বাংলার। অনেক যাত্রীও রয়েছেন যারা চিকিৎসা নিতে ভারতে যাওয়ার অপেক্ষায় আছেন। নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলে যাত্রীদের সুবিধা অনুযায়ী সময়ে ফ্লাইট শুরু করা হবে।

এদিকে ভারতের সঙ্গে এয়ার বাবল প্রসঙ্গে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত বিভিন্ন দেশের কভিড-সংক্রান্ত পরিসংখ্যান বিচার-বিশ্লেষণ করি। যেহেতু ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা অনেক কমেছে, সে অনুযায়ী আমরা মনে করছি, কিছুটা শিথিল করতে পারি আমরা। অনেক সময় মারাত্মক রোগীরা হয়তো দ্রুত যেতে চান। আবার ভারত থেকে যারা বাংলাদেশে ফেরত আসছেন, তারা সীমান্ত দিয়ে আসছেন।

এদিকে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সব আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিলের সময়সীমা বাড়িয়েছে ভারত। ভারতের ডিরেক্টর জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশন (ডিজিসিএ) এক বিবৃতিতে জানায়, ৩১ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানো হলো। তবে পণ্যবাহী বিমানগুলোর পাশাপাশি এয়ার বাবল ও বন্দে ভারত মিশনের অন্তর্ভুক্ত বিমানগুলো এ নিষেধাজ্ঞার আওতার বাইরে থাকবে।

উল্লেখ্য, করোনার সংক্রমণ বাড়ায় গত ২৩ মার্চ সব আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিলের ঘোষণা দেয় ভারত। এর পর থেকে দফায় দফায় ফ্লাইট চলাচলে নিষেধাজ্ঞা বাড়ানো হয়। এর আগে ৩১ জুলাই পর্যন্ত আন্তর্জাতিক সব ফ্লাইট বাতিল করেছিল ডিজিসিএ। করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের শঙ্কায় ফ্লাইট বাতিলের সময়সীমা ফের বাড়াল দেশটি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »