Ultimate magazine theme for WordPress.

জুনে জাপানের রফতানি আয়ে উল্লম্ফন

0

কভিড-১৯ মহামারীর ধকল সামলে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বৈশ্বিক অর্থনীতি। পুনরুদ্ধারের এই সময়ে বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন পণ্যের তীব্র চাহিদা তৈরি হয়েছে। ফলে রফতানিনির্ভর দেশগুলোর এ খাতের আয়ে উল্লম্ফন দেখা দিয়েছে। গত মাসে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতিতেও এমন চিত্র দেখা গেছে। জাপানের রফতানি আয় আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৪৬ দশমিক ২ শতাংশ বেড়েছে। রফতানি আয়ে টানা চতুর্থ মাসের মতো দেশটি দুই অংকের প্রবৃদ্ধি দেখল। গতকাল প্রকাশিত রয়টার্সের এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যন্ত্রপাতি ও প্রযুক্তি সম্পর্কিত পণ্যগুলোর বৈশ্বিক চাহিদা এবং কভিডজনিত মন্দা থেকে শিপমেন্টগুলো পুনরুদ্ধার হওয়ায় জুনে রফতানি বেড়েছে। বৈশ্বিক চিপ সংকটে জাপানের গাড়ি উৎপাদন ও সরবরাহ বাধাগ্রস্ত হওয়ার পরও রফতানি আয়ে এমন প্রবৃদ্ধি দেখা গেছে।

তবে রফতানি আয় পুনরুদ্ধার হলেও অন্যান্য ক্ষেত্রে পিছিয়ে আছে টোকিও। নতুন করে কভিড-১৯ সংক্রমণ বাড়ার কারণে দেশটির ভোক্তা ব্যয় দুর্বল হয়ে গেছে। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) জাপানের অর্থনীতি ৩ দশমিক ৯ শতাংশ সংকুচিত হয়েছিল। দ্বিতীয় প্রান্তিকে এসে দেশটির অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়ানোর ইংগিত দেখা যাচ্ছে।

রয়টার্সের জরিপে দেখা গেছে, মূল ভোক্তা মূল্যস্ফীতি সম্ভবত জুনে সামান্য বেড়েছে। ২ শতাংশ মূল্যস্ফীতি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যাংক অব জাপানের (বিওজে) পদক্ষেপ প্রতিফলিত হয়েছে। মে মাসে ৪৯ দশমিক ৬ শতাংশ রফতানি প্রবৃদ্ধির পর জুনেও এমন ধারাবাহিকতা বজায় রয়েছে।

গত মাসে রফতানি প্রবৃদ্ধির পাশাপাশি আমদানিও সম্ভবত ২৯ শতাংশ বেড়েছে। ফলে দেশটির বাণিজ্য উদ্বৃত্ত ৪১৮ কোটি ডলারে পৌঁছেছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »