Ultimate magazine theme for WordPress.

জ্বালানি তেল উত্তোলন বাড়ানোর পরিকল্পনা ভেনিজুয়েলার

0

ভেনিজুয়েলার জ্বালানি তেল খাতে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা চলছে। মাদক, সন্ত্রাসবাদ ও মানবাধিকার লঙ্ঘন ইস্যুতে নিকোলাস মাদুরো সরকারের ওপর দীর্ঘদিন ধরে এ নিষেধাজ্ঞা জারি রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। ফলে জ্বালানি তেলসমৃদ্ধ দেশটির অর্থনীতি পঙ্গু হয়ে পড়েছে। তবে চলতি বছর অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উৎপাদনে উচ্চাভিলাষী পরিকল্পনা রয়েছে ভেনিজুয়েলার।

চলতি বছরের শেষ নাগাদ লাতিন আমেরিকার দেশটি অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন চার গুণ বাড়াবে। এ সময় উত্তোলন দৈনিক ১৫ লাখ ব্যারেলে উন্নীত করার সিদ্ধান্ত রয়েছে দেশটির। এ লক্ষ্যে ক্রমে বিনিয়োগ বাড়াচ্ছে নিকোলাস মাদুরোর সরকার। ব্লুমবার্গকে দেয়া এক সাক্ষাত্কারে এ তথ্য জানিয়েছেন ভেনিজুয়েলার জ্বালানি তেলবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী তারেক এল আসামি।

তিনি বলেন, কোনো অর্থনৈতিক সহায়তা ছাড়াই নিজেদের অর্থেই আমরা জ্বালানি তেল খাতে প্রবৃদ্ধি আনতে সক্ষম হব। এ খাতে চ্যালেঞ্জ কাটিয়ে উঠতে আমরা এরই মধ্যে বড় পরিসরে বিনিয়োগ করছি।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, ভেনিজুয়েলার জ্বালানি তেল খাতের জন্য সবচেয়ে বড় সংকটের বছর ছিল ২০১৯। ওই বছরের শুরুর দিকে দেশটির জ্বালানি তেল খাতের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় একদিকে দেশটির খনিগুলো থেকে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের উত্তোলন কমতে শুরু করে, অন্যদিকে কমে আসে জ্বালানি পণ্যটির রফতানিও। ফলে দেশটি জ্বালানি পণ্যটির রফতানি বাজার থেকে ছিটকে পড়ে। গত বছর দেশটির জ্বালানি তেল ও পরিশোধিত জ্বালানি তেলজাত পণ্য রফতানি ৭৭ বছরের সর্বনিম্নে নেমে যায়।

মার্কিন কঠোর নিষেধাজ্ঞা ও অন্যান্য দেশীয় সংকটকে আরো তীব্র করে তুলেছে নভেল করোনাভাইরাস মহামারী। এর মধ্যে গত বছর জ্বালানি পণ্যটির স্থানীয় বাজারে দাম কমে যায়। তবে নানামুখী সংকট সত্ত্বেও চলতি বছর অপরিশোধিত জ্বালানি তেল খাতে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় নিয়ে কাজ করছে ভেনিজুয়েলা। এ বছর অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন চারগুণ বৃদ্ধির পরিকল্পনা নিয়েছে দেশটি। পাশাপাশি বিশ্বের শীর্ষ অপরিশোধিত জ্বালানি তেল মজুদকারী দেশের তকমা ধরে রাখতে গ্যাস স্টেশনগুলোতে নিরবচ্ছিন্ন সংযোগ কমিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্তও নেয়া হয়েছে।

এল আসামি বলেন, গত বছরের গ্রীষ্মে করোনার প্রাদুর্ভাব ও জ্বালানি তেলের বাজারদরে মন্দা উত্তোলনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। এ সময় দৈনিক চার লাখ টন করে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন করা হয়। কিন্তু এ বছর উত্তোলন বেড়ে দৈনিক সাত লাখ ব্যারেলের গণ্ডি ছাড়িয়েছে।

জ্বালানি তেল রফতানিকারক দেশগুলোর জোট ওপেকের সর্বশেষ মাসভিত্তিক তেলবাজার-বিষয়ক প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বছরের মে মাসে ভেনিজুয়েলা দৈনিক ৫ লাখ ৩১ ব্যারেল জ্বালানি তেল উত্তোলন করেছে। এপ্রিলের তুলনায় উত্তোলন বেড়েছে দৈনিক ৪৫ হাজার ব্যারেল।

দেশটির সরকারি প্রতিবেদন অনুযায়ী, মে মাসে উত্তোলনের পরিমাণ ছিল দৈনিক ৫ লাখ ৮২ হাজার ব্যারেল। এপ্রিলের তুলনায় উত্তোলন বেড়েছে দিনপ্রতি ১ লাখ ৩০ হাজার ব্যারেল।

তবে ভেনিজুয়েলার তেল উত্তোলন চারগুণ বৃদ্ধির সিদ্ধান্তকে অবাস্তব পরিকল্পনা বলে মনে করছেন দেশটির অপরিশোধিত জ্বালানি তেলবাজার বিশ্লেষক ফ্রান্সিসকো মোনাল্ডি। তিনি বলেন, ভেনিজুয়েলা এ বছরের শেষ নাগাদ দৈনিক ১৫ লাখ ব্যারেল করে জ্বালানি তেল উত্তোলনের যে লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করেছে তা অসম্ভব।

তিনি আরো বলেন, ২০১৪ সাল থেকে ভেনিজুয়েলার জ্বালানি তেল উৎপাদন সক্ষমতা কমছে। সূত্র: অয়েলপ্রাইসডটকম

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »