Ultimate magazine theme for WordPress.

প্রবাসীর সংগে ইমোতে সাত বছর প্রেম, বিয়ে ঠিক হওয়ার পর তরুণীর আত্মহত্যা

0

ভিডিও কলিং অ্যাপ ইমোতে সাত বছর প্রেম করে অবশেষে বনিবনা না হওয়া আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন ফাতেমা আক্তার (২২) নামের এক তরুণী। বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) বেলা ১টার দিকে মুন্সীগঞ্জ মিরকাদিম পৌরসভা এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।
নিহত ফাতেমা আক্তার (২২) পৌরসভার কাঠালতলা এলাকার আহম্মেদ হোসেনের মেয়ে।
নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ফাতেমার সংগে গত সাত বছর ধরে মো. ফারহান সবুজ নামে এক সৌদি প্রবাসীর সংগে ইমোতে যোগাযোগ ছিলো। তাঁদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। এর মধ্যে কখনো তাঁদের সামনাসামনি দেখা হয়নি। ফাতেমাকে অন্য কোথাও বিয়ে দিতে চাইলে ফারহান নানান ভাবে ব্ল্যাকমেইল করে। গত সপ্তাহে পারিবারিকভাবে তাঁদের বিয়েও ঠিক হয়। কিন্তু গত তিনদিন আগে ফাতেমাকে ফারহান বিভিন্ন কারণের সন্দেহ করে বকাঝকা করে। বিষয়টি মেনে নিতে না পেরে ফাতেমা গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেন।
নিহতের মা বলেন, গত সপ্তাহে পারিবারিকভাবে ফারহানের সংগে আমার মেয়ের বিয়ে ঠিক হয়েছিলো। কিন্তু গত তিনদিন ধরে ফাতেমা খাবার খায় না। জিজ্ঞাসা করলে উত্তরও দেয় না। আজ বেলা ১টার দিকে রান্না বসিয়ে পুকুরে পানি আনতে গেলে এই সুযোগে ফাতেমা ঘরের দরজা জানালা বন্ধ করে গলায় ফাঁস নেয়। পরে আমার ছোট ছেলে দরজা ভেঙে ফাতেমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।
তবে এ বিষয়ে ফারহান কিংবা তার পরিবারের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
হাতিমার পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক এনামুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এই ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »