Ultimate magazine theme for WordPress.

রেফারির এমন ‘ভুল’ মানতে পারছে না কলম্বিয়া

0

ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক…কলম্বিয়ার বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও জয় তুলে নিয়েছে ব্রাজিল। সেলেসাওদের সমতা ফেরানো গোল নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আর্জেন্টাইন রেফারি নেস্তর পিতানার সমালোচনায় মেতেছেন ফুটবলপ্রেমীরা। দারুণ লড়াই করেও হারের হতাশায় পুড়েছে কলম্বিয়া। দলটি অবশ্য বেশি হতাশ রেফারির সিদ্ধান্তে।
ব্রাজিল-কলম্বিয়া ম্যাচে দায়িত্ব পালন করা নেস্তর পিতানা ২০১০ সাল থেকে ফিফার এলিট প্যানেলের রেফারি। ২০১৮ বিশ্বকাপ ফাইনালসহ দুটি বিশ্বকাপে পরিচালনা করেছেন ৯টি ম্যাচ। অভিজ্ঞতায় পরিপূর্ণ পিতানা করে বসেন বড় ভুল। ম্যাচের ৭৮ মিনিটে রেনান লোদির ক্রসে মাথা ছুঁইয়ে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরান রবার্তো ফিরমিনো।
তার আগে নেইমারের থ্রু বলটা লেগেছিল রেফারির পায়ে। তখনও খেলা থামাননি পিতানা। নিয়ম অনুযায়ী, খেলা থামিয়ে পুনরায় শুরুর কথা রেফারির। পিতানার পায়ে বল লাগার মুহূর্তে মনযোগ হারান কলম্বিয়ান ফুটবলাররা। গোল হওয়ার প্রতিবাদ করেও সফল হননি তারা। কলম্বিয়ান স্ট্রাইকার হুয়ান কুয়াদ্রাদো মানতেই পারছিলেন না ম্যাচের ওই ঘটনা। জুভেন্টাস তারকা বলেন, ‘আমরা বিশ্বের অন্যতম সেরা একটা দলের বিপক্ষে সেরা খেলাটাই খেলেছি। দুঃখজনক হলেও সত্যি আমরা ম্যাচটা হেরেছি ভুল সিদ্ধান্তের কারণে। এই রেফারি অনেক অভিজ্ঞ। বিশ্বকাপের ম্যাচ পরিচালনার অভিজ্ঞতা যার রয়েছে তিনি ভুলটা করলেন যা আমাদের কষ্ট দিয়েছে। এরকম ঘটনার মুখোমুখি এর আগে কখনই হতে হয়নি।
কলম্বিয়া কোচ রেইনাল্ডো রুয়েদাও রেফারিং নিয়ে ক্ষোভ দেখিয়েছেন। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, ‘ব্রাজিলের দুটো গোল দুটো ভিন্ন পরিস্থিতিতে এসেছে। আমার মনে হয় রেফারির সে পরিস্থিতিটার কারণে খেলোয়াড়দের মনোযোগ কিছুটা সরে গিয়েছিল। এমন পরিস্থিতিতেই এসেছে প্রথম গোলটা।
রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নিয়ে মাথা ব্যাথা নেই ব্রাজিলের। ম্যাচের শেষ মিনিটে গোল করে ব্রাজিলকে জয় এনে দেন ক্যাসেমিরো। ব্রাজিল অধিনায়ক মনে করেন জয়টা তাদেরই প্রাপ্য ছিল। তিনি বলেন, ‘ম্যাচে আমরা দারুণ মানসিক শক্তির প্রমাণ রেখেছি। ম্যাচের লাগাম আমাদের হাতেই ছিল। শেষ পর্যন্ত লড়ে যাওয়ার পুুরস্কারও পেয়েছি। এরকম মানসিকতাই থাকা উচিত। কৃতিত্বটা তাই ব্রাজিলের প্রাপ্য।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »