Ultimate magazine theme for WordPress.

ব্রাজিলীয়দের মধ্যে বেড়েছে অসন্তোষ-ক্রোধ

0

ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক…কভিড-১৯ মহামারীতে বিশ্বজুড়ে বেড়েছে অসমতা। সম্পদশালীরা আরো বেশি ধনী হয়েছে। অন্যদিকে আরো বেশি দারিদ্রে পতিত হয়েছে স্বল্প আয়ের মানুষ। এক্ষেত্রে দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে অসমতার পরিমাণ এক দশকে সর্বোচ্চ অবস্থায় পৌঁছেছে। গত ১৫ বছরের মধ্যে ব্রাজিলীয়রা এতটা খারাপ পরিস্থিতি পার করেনি। মহামারীতে দেশটির চাকরির বাজার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় ব্যাপকভাবে কমে যায় দরিদ্রদের আয়। খবর ব্লুমবার্গ।
রিও ডি জেনেরিওয়ের ফান্ডেচাও জেটুলিও ভার্গাস বিজনেস স্কুলের (এফজিভি) গবেষণা অনুযায়ী, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) ব্রাজিলীয়দের মাথাপিছু গড় আয় কমে ৯৯৫ রিয়েলে (১৯৫ ডলার) দাঁড়িয়েছে। এটা এক দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন এবং ২০২০ সালের একই সময়ের তুলনায় ১১ দশমিক ৩ শতাংশ কম।
হঠাৎ করেই দেশটির গড় আয়ে এমন পতন ঘটে। কভিড-১৯ মহামারী আঘাত হানার ঠিক আগে গত বছরের শুরুতে ব্রাজিলীয়দের মাথাপিছু গড় আয় ২০১২ সালের পর সর্বোচ্চ উচ্চতায় পৌঁছেছিল।
আর এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়ে দেশটির দরিদ্র জনগোষ্ঠী। গবেষণাটির তথ্য বলছে, গত বছর সবচেয়ে দরিদ্র ৪০ শতাংশ নাগরিকের আয় ২০ দশমিক ৮১ শতাংশ কমে গেছে। ফলে আয়বৈষম্যের বৈশ্বিক পরিমাপ গিনি সূচকে বছরের প্রথম তিন মাসে দেশটির অবস্থান শূন্য দশমিক ৬৭৪ পয়েন্টে পৌঁছেছে। এ হার ২০১২ সালের পর সর্বোচ্চ। এ স্কেল শূন্য থেকে ১ পয়েন্টে গণনা করে। এক পয়েন্টের কাছাকাছি মানে উচ্চতর বৈষম্য।
এমন উচ্চ বৈষম্য ব্রাজিলীয়দের মধ্যে অসন্তোষ ও ক্রোধ বাড়িয়ে তুলেছে। দেশটির শ্রমবাজারে কভিডের প্রভাব নাগরিকদের গত ১৫ বছরের চেয়ে বেশি অসন্তুষ্ট ও ক্ষুব্ধ করে তুলেছে বলে মন্তব্য করেছেন গবেষণাটির প্রধান ও অর্থনীতিবিদ মার্সেলো নেরি। তিনি বিজনেস স্কুলের সামাজিক গবেষণা কেন্দ্রেরও প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
শূন্য থেকে ১০ স্কেলে ব্রাজিলের নাগরিকদের গড় সুখ পরিমাপ করা হয়। এক্ষেত্রে জানুয়ারি-মার্চ সময়ে তাদের গড় সুখ কমে ৬ দশমিক ১ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। এ হার মহামারীর আগের অর্থাৎ ২০১৯ সালের চেয়ে শূন্য দশমিক ৪ পয়েন্ট কম এবং ২০০৬ সালের পর সর্বনিম্ন স্তর। সুখের এ স্তর স্বল্প আয়ের মানুষদের মধ্যে মারাত্মকভাবে কমে গেছে। দেশটির ৪০ শতাংশ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে এ গড় সুখ কমেছে শূন্য দশমিক ৮ পয়েন্ট। যেখানে ধনীদের মধ্যে উল্টো চিত্র দেখা গেছে। এ সময়ে দেশটির সবচেয়ে ধনী ২০ শতাংশ জনগোষ্ঠীর মধ্যে গড় সুখ শূন্য দশমিক ১ শতাংশ বেড়েছিল।
সমীক্ষায় দেখা গেছে, ব্রাজিলে রাগ বা ক্রোধের অনুভূতিও অনেক বেড়েছে। ২০১৯ সালে ১৯ শতাংশ থেকে বেড়ে ২০২০ সালে রাগের অনূভূতি ২৪ শতাংশে পৌঁছেছে।
কভিড-১৯ মহামারীতে বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম ব্রাজিল। ওয়ার্ল্ভ্রোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত ব্রাজিলের ১ কোটি ৭০ লাখেরও বেশি নাগরিক কভিডে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে, যা বিশ্বের মধ্যে তৃতীয় সর্বোচ্চ। অন্যদিকে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে ৩ লাখ ৯৪ হাজারেরও বেশি ব্রাজিলিয়ানের মৃত্যু হয়েছে, যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। ভাইরাসটি এমন ভয়াবহ আকার ধারণ করার ক্ষেত্রে দেশটির সরকারের বেশকিছু ভুল পদক্ষেপকে দায়ী করা হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »