Ultimate magazine theme for WordPress.

ত্ব-হা ও তাঁর সংগীদের জবানবন্দি নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ

0

ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক…ধর্মীয় বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান ও তাঁর তিন সংগীর জবানবন্দী নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। শুক্রবার (১৮ জুন) রাতে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হাফিজ উদ্দিনের আদালত এই আদেশ দেন।
এর আগে রংপুর মহানগর পুলিশের (আরএমপি) ক্রাইম ডিভিশনের উপ-কমিশনার আবু মারুফ হোসেন জানিয়েছিলেন, পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক কী হবে, সে নির্দেশনার জন্যই মূলত তাঁদের আদালতে আনা হয়েছে।
এর আগে, দুপুরে আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান ও তার তিন সংগীর সন্ধান পায় পুলিশ।
আবু ত্ব-হা ও তাঁর সংগীদের জবানবন্দি নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ
ধর্মীয় বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান ও তাঁর তিন সংগীর জবানবন্দী নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। শুক্রবার (১৮ জুন) রাতে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হাফিজ উদ্দিনের আদালত এই আদেশ দেন।
এর আগে রংপুর মহানগর পুলিশের (আরএমপি) ক্রাইম ডিভিশনের উপ-কমিশনার আবু মারুফ হোসেন জানিয়েছিলেন, পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক কী হবে, সে নির্দেশনার জন্যই মূলত তাঁদের আদালতে আনা হয়েছে।
এর আগে, দুপুরে আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান ও তার তিন সংগীর সন্ধান পায় পুলিশ।
গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) জানায়, আলোচিত ধর্মীয় বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানকে রংপুরে তাঁর প্রথম স্ত্রীর বাসা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।
শুক্রবার (১৮ জুন) বিকালে রংপুর ডিবির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে রংপুর মহানগর পুলিশের (আরএমপি) ক্রাইম ডিভিশনের উপ-কমিশনার আবু মারুফ হোসেন বলেন, মা ও ভাইয়ের জিডির সূত্রে আমরা অনুসন্ধান করতে থাকি। আজকে আমরা পোপন সূত্রে জানতে পারি, আবু ত্ব-হা তাঁর কলেজ রোডে চারতলা মোড়ে প্রথম স্ত্রীর সংগে অবস্থান করছেন। সেই সংবাদ পেয়ে আমরা তাঁকে নিয়ে আসি। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে আমরা অপর সংগীদের সন্ধান পাই।
তিনি আরও জানান, আবু ত্ব-হা আদনান ব্যক্তিগত কারণে আত্মগোপনে ছিলেন। কিন্তু কী কারণে আত্মগোপনে ছিলেন সে বিষয়ে পরিস্কার করে কিছু জানানো হয়নি।
আবু মারুফ হোসেন বলেন, ব্যক্তিগত কিছু কারণে আত্মগোপনে ছিলেন ত্ব-হা এবং তাঁর সংগীরা। আমরা সেসব কারণ পাবলিকলি না বলি। তাঁদের বিরুদ্ধে কোনো অপরাধ ঘটেনি বলে প্রাথমিকভাবে আমাদের জানিয়েছেন। তারপরেও তাঁদের বিষয়ে তথ্যগুলো যাচাই বাছাই করে প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপ নেবো।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও জানান, গাইবান্ধার ত্রিমাথায় সিয়াম নামে এক বন্ধুর বাসায় ছিলেন ত্ব-হা। সিয়াম ওই বাসায় থাকেন না, তাঁর মা থাকেন।
আবু মারুফ হোসেন বলেন, আবু ত্ব-হা একজন শিক্ষিত লোক। তিনি জানেন যে, তাঁর ফোন খোলা থাকলে তাঁকে ট্রেস করা যাবে। এই কারণে তিনি নিজেই সবার কাছ থেকে মোবাইল ফোন নিয়ে সেগুলো বন্ধ করে রাখেন।
এর আগে আটদিন ‘নিখোঁজ’ থাকার পর আলোচিত ‘ইসলামি বক্তা’ আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানের সন্ধান মেলে শুক্রবার। বিকাল ৩টার দিকে তাঁকে রংপুর নগরীর মাস্টার পাড়ায় শ্বশুর বাড়ি থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মহানগর পুলিশের অপরাধ বিভাগে নেওয়া হয়।
জানা গেছে, আবু ত্ব-হা আদনানের প্রথম স্ত্রীর নাম হাবিবা নুর। তিনি রংপুরে থাকেন। তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী সাবিকুন নাহার ঢাকায় থাকেন।
রংপুর পুলিশের অপরাধ বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (ডিসি) আবু মারুফ জানিয়েছিলেন, ত্ব-হা রংপুর নগরীর কলেজ রোডে চারতলা মোড়ে প্রথম স্ত্রীর ভাড়া বাসায় অবস্থান করছিলেন।
ত্ব-হা’র শ্যালক জাকারিয়া হোসেন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আবু ত্ব-হা বর্তমানে তাঁর শ্বশুর বাড়িতে রয়েছেন। এতদিন আবু-ত্বহা কোথায় ছিলেন, কীভাবে ফিরলেন সে সম্পর্কে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানাতে পারেননি তিনি।
এর আগে গত বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ত্ব-হার সন্ধান চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী সাবিকুন নাহার। তিনি বলেন, ত্ব-হা গত ১০ জুন থেকে চার সংগীসহ নিখোঁজ।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, শুক্রবার ঢাকার একটি মসজিদে খুতবা দেওয়ার উদ্দেশ্যে রংপুর থেকে বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে ভাড়া করা একটি গাড়িতে রওনা দেন ত্ব-হা। তাঁর সংগে ছিলেন দুই সংগী আবদুল মুহিত ও ফিরোজ। এছাড়া গাড়িচালক আমির উদ্দিন ফয়েজও ছিলেন।
এদিকে ছেলের সন্ধান পেতে আদনানের মা রংপুর কোতোয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »