Ultimate magazine theme for WordPress.

তুরস্কের ‘করকুট’ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থায় ইউক্রেনের চোখ

0

ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক…তুরস্কের তৈরি বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ‘করকুট’ কেনার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে ইউরোপের দেশ ইউক্রেন। দেশটির সংবাদ মাধ্যমের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার এ খবর জানিয়েছে তুর্কিভিত্তিক গণমাধ্যম ইয়েনি শাফাক।
এতে বলা হয়েছে, আগামী সপ্তাহে কিয়েভ সশস্ত্র ও নিরাপত্তা ২০২১ প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। সেখানেই এটি প্রদর্শন করা হবে। প্রদর্শনীটি ১৫ থেকে ১৮ জুন চলবে। সেখানেই অ্যাসেলসান এর তৈরি এ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাটি দেশটির সামরিক বাহিনীকে প্রদর্শন করা হবে। ‘করকুট’ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাটি একটি নিন্ম উচ্চতার বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র।
ইউক্রেনের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের বরাতে বলা হয়, ধারাণা করা হচ্ছে ওই প্রদর্শনীতে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাটি কেনার আদেশ দিতে পারে কিয়েভ।
এর আগে ২০১৯ সালে তুরস্ক ছয়টি বায়রাক্টর টিবি২ ড্রোন ও তিনটি গ্রাউন্ড কন্ট্রোল স্টেশন বিক্রি করেছিল ইউক্রেনের কাছে। এরপরে ২০২০ সালে দেশ দুটির মধ্যে একটি চুক্তি হয়। সে অনুযায়ী টিবি২ ড্রোন কপি করতে পারবে ইউক্রেন।
তুর্কির সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে, তুর্কির সামরিক ড্রোন দিয়ে রাশিয়ার তৈরি প্যান্টসার ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করা হয়েছে। ওই ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাটি সিরিয়ার ব্যবহার করা হয়েছিল। এ ছাড়া লিবিয়া ও নাগোরনো-কারাবাখে তুরস্কের ড্রোন সফলভাবে কাজ করেছে। ফলে সেখানে জয় পেয়েছে দেশটির মিত্ররা।
‘করকুট’ সম্পর্কে বলা হয়েছে, আধুনিক যুদ্ধবিমানের হুমকি প্রতিরোধ করতে পারবে এ ক্ষেপণাস্ত্রটি। এর নকশা এমনভাবে করা হয়েছে যে, ভূমি থেকে বিমানবাহী ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করতে খুবই কার্যকরী। এই ক্ষেপণাস্ত্রটিতে তিনটি ৩৫ এমএম গান সিস্টেম রয়েছে। পাশাপাশি একটি কমান্ড পোস্টও রয়েছে। যেখান থেকে এটি স্বতন্ত্রভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »