Ultimate magazine theme for WordPress.

যে কারণে বেগম জিয়াকে বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হলো না!!

0

ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক…সাবেক প্রধানমন্ত্রী এবং বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার অনুমতি দিচ্ছে না সরকার। আইনমন্ত্রণালয়ের পরামর্শ পাওয়ার পর রবিবার (৯ মে) বিকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, দণ্ড মওকুফ করে বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশ পাঠানোর কোনও সুযোগ নেই।গত ৫ মে রাতে বেগম জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার অনুমতি চেয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেন তাঁর ভাই শামীম ইস্কান্দার। এরপর আবেদনটির আইনি দিক পর্যালোচনার জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়।রবিবার সকালে আইন সচিব গোলাম সারওয়ার জানান, আইন মন্ত্রণালয়ের দেওয়া মতামতের কপি সকালে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পৌঁছেছে। এখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নেবে। পরে সিদ্ধান্তের জন্য তা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হতে পারে।এরপর বিকালে সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আইন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে তাঁর সাজা মওকুফ ছাড়া তাঁকে বিদেশ পাঠানো যাবে না। এ মতামত অনুযায়ী খালেদা জিয়া’র পরিবারের আবেদন মঞ্জুর হবে না, এ সিদ্ধান্ত তাঁর পরিবারকে জানিয়ে দেয়া হবে।বেগম জিয়াকে বিদেশে যেতে না দেওয়ার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, তিনি আদালত কর্তৃক দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে জেলে আছেন। প্রধানমন্ত্রী তাঁদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ৪০১ এর ১ ফৌজদারি আইন অনুযায়ী তাঁর দণ্ডাদেশ স্থগিত করে তাঁর সুবিধামতো চিকিৎসা নেয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন। তিনি বাসায় থেকে কিংবা সুবিধা মতো চিকিৎসা নিচ্ছেন। কয়েকদিন আগে করোনা আক্রান্ত হলে তিনি এভারকেয়ার হাসপাতালেও চিকিৎসা নিয়েছেন। এরমধ্যে তাঁর ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার আরেকটি আবেদন করেন বিদেশে নেওয়ার জন্য। সেটার আইনি দিকগুলো খতিয়ে দেখার জন্য আমরা আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছিলাম। তাঁরা মতামত দিয়েছেন, যে ধারায় তাঁর দণ্ড স্থগিত রেখে চিকিৎসা সুবিধা দেওয়া হয়েছে সেটা পুনরায় বিবেচনা করে বিদেশে পাঠানোর কোনও সুযোগ নেই। তাই আমরা তাঁদের আবেদনটি মঞ্জুর করতে পারছি না।জানা গেছে, দণ্ডিত কারও বিদেশে চিকিৎসার নজির না থাকায় এই মতামত দিয়েছে আইনমন্ত্রণালয়। তবে বেগম জিয়া’র আইনজীবী ও দলের যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন এর মতে, শর্ত বাড়িয়ে বা কমিয়ে সরকার বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দিতে পারতো। দুপুরে বাংলাভিশন ডিজিটালকে তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় চাইলে শর্ত কমিয়ে বা বাড়িয়ে তাঁকে বিদেশে চিকিৎসা করার সুযোগ দিতে পারতো। এখন তাঁরা যে সিদ্ধান্ত জানিয়েছে তা অমানবিক।গত ১১ এপ্রিল খালেদা জিয়ার শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়। তখন সিটি স্ক্যান রিপোর্টে তাঁর ফুসফুসে পাঁচ শতাংশে সংক্রমণ পাওয়া গিয়েছিলো। গত ২৫ এপ্রিল দ্বিতীয়বারের মতো কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হলে সেখানেও তাঁর রিপোর্ট পজিটিভ আসে। পরে জটিলতা দেখা দেওয়ায় ২৭ এপ্রিল থেকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন খালেদা জিয়া। সেখানে করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিআই)-এ তাঁর চিকিৎসা চলছে। শনিবার (৮ মে) তৃতীয় দফা টেস্টে তাঁর করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »