Ultimate magazine theme for WordPress.

অভিবাসী ইউরোপের জন্য হুমকি নয় : পর্তুগীজ আন্তঃমন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এডুয়ার্ডো ক্যাব্রিটা

0

ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক…আমাদেরকে অভিবাসীদের প্রতি দ্বায়িত্ব এবং সংহতির মধ্যে ভারসাম্য আনতে হবে। আমাদেরকে বৈধ অভিবাসীদের উৎসাহিত করতে হবে। এজন্য অত্যাধুনিক ডিজিটাল সরঞ্জামগুলোর বিকল্প নেই।
শুক্রবার পর্তুগীজ আন্তঃমন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এডুয়ার্ডো ক্যাব্রিটা ইউরোপীয় অভিবাসন নেটওয়ার্কের বার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন।
সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিলো ডিজিটাল ‘ট্রান্সফরমেশন ইন মাইগ্রেশন’ বা অভিবাসীদেরকে ডিজিটালে রূপান্তর।
ইউরোপীয় ইউনিয়ন কাউন্সিলের (ইইউ) বর্তমান সভাপতি পর্তুগালের আন্তঃমন্ত্রণালয়ের অধীনে পর্তুগীজ বিদেশী ও সীমান্ত পরিষেবা (এসইএফ) এ সম্মেলনের আয়োজন করে।
মন্ত্রীর মতে, আমাদেরকে এমন একটি সিস্টেম চালু করতে হবে যা দিয়ে ইউরোপীয় এসাইলাম সাপোর্ট অফিস (ইএএসও) এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরের সীমান্ত বাহিনী ফ্রন্টেক্সকে প্রযুক্তিগত সহায়তা দিবে। সদস্য রাষ্ট্রের প্রত্যেকটি জাতীয় অথরিটির সাথে সমন্বয় সাধন করে অভিবাসীদেরকে সুস্থভাবে নিয়ন্ত্রণ করবে।
মন্ত্রী বলেন, বছরের এই সেমিস্টারের সবচেয়ে বড় উন্নয়ন হলো অভিবাসনের প্রতি বৈশ্বিক দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টানো। আর এরজন্য আমরা সর্বাত্মক কাজ করে যাচ্ছি।
এ ব্যাপারে তিনি বলেন, অভিবাসীদেরকে ইউরোপীয়ান লেভেলের হতেই হবে এটা কোনো ইস্যু নয় এবং এই দিকে আমাদের মনোনিবেশ করাও উচিত নয়।
তিনি আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) এবং অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংস্থা (ওইসিডি) গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, আমাদেরকে তাদের সাথে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে ।
বর্তমান বিশ্বায়নের যুগে অভিবাসী একটা সাধারণ ব্যাপার। আমরা তাদেরকে হুমকি স্বরুপ মনে করি না বা করতে পারি না।
এ সময় তিনি অভিবাসীদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করে বলেন, করোনাভাইরাস মহামারীতে সবচেয়ে বেকায়দায় পড়েছে অভিবাসীরা। আমাদেরকে তাদের প্রতি আরো যত্নবান হতে হবে।
২০০৮ সালে তৈরি এবং ইউরোপীয় কমিশনের সমন্বয়ে গঠিত ইউরোপীয়ান অভিবাসন নেটওয়ার্কটির মূল কাজ হলো, মাঠ পর্যায়ে অভিবাসন ও আশ্রয়প্রার্থীর উদ্দেশ্য, নির্ভরযোগ্য এবং তুলনীয় তথ্য সংগ্রহ, বিশ্লেষণ এবং প্রচার করে ইউরোপীয় অভিবাসন ও আশ্রয়নীতিকে সাহায্য করা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »