Ultimate magazine theme for WordPress.

ঢাকা-১৪ আসনের উপনির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হতে চান ডিপজল

0

ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক…ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল। তিনি একাধারে একজন অভিনেতা, প্রযোজক, পরিচালক, ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদ। ডিপজল ঢাকার একটি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ছিলেন। সম্প্রতি ঢাকা-১৪ আসন থেকে তিনবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য আসলামুল হকের মৃত্যুতে এই সংসদীয় এই আসন শূন্য হয়। এবার ঢাকা-১৪ আসনের উপনির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হতে চান ডিপজল। নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে প্রোফাইল এবং পেজে একটি পোস্টার শেয়ার করার মাধ্যমে প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন তিনি।
উপনির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার প্রসঙ্গে ডিপজল বলছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা যদি আমাকে ঢাকা-১৪ আসনে সংসদ সদস্য প্রার্থী হিসেবে যদি আমাকে মনোনয়ন প্রদান করেন, আমার এলাকার মানুষের সেবা করার সুযোগ দেন, তাহলে আমি নির্বাচনে প্রার্থী হতে আগ্রহী।
উল্লেখ্য গত ৪ এপ্রিল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ঢাকা-১৪ আসনের সংসদ সদস্য আসলামুল হক। ফলে ওই আসনটি বর্তমানে শূন্য। মিরপুর, শাহআলী, দারুসসালাম থানা এবং রূপনগর থানার আংশিক ও সাভার উপজেলার কাউন্দিয়া ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত ঢাকা ১৪ আসন।
ঢাকা-১৪ আসনের প্রয়াত সাংসদের স্মৃতিচারণ করে ডিপজল বলেন, ‘আসলামুল হক আমার ছোটবেলার বন্ধু। আমার সঙ্গে ‘তুই তুই’ সম্পর্ক। ও এভাবে হুট করে মারা যাবে ভাবতেই পারিনি। কয়েক দিন আগেও ওর অফিসে দেখা হলো, আড্ডা হলো। কে জানতো ও এভাবে আমাদের ছেড়ে চলে যাবে।’
ডিপজল আরও বলেন, আমি নিজের জন্য অনেক করছি। আজীবন নিজের জন্যই করেছি। এবার মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। আমি আমার সবকিছুর বিনিওময়ে এবার মানুষের সেবা করতে চাই। আমার বন্ধু আসলামুল হক অকালে না ফেরার দেশ্যে চলে গেল, তার জন্য হলেও আমি মিরপুরের এই আসন থেকে নির্বাচন করতে চাই।
ডিপজল এর আগে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৪ আসন থেকে নৌকার টিকিট চেয়েছিলেন। কিন্তু দল থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয় আসলামুল হককে। তবে গুঞ্জন রয়েছে, ডিপজল বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। এই দলের ব্যানারে তিনি কাউন্সিলরও নির্বাচিত হয়েছিলেন।
কিন্তু এই গুঞ্জনকে উড়িয়ে দিয়ে অভিনেতা বলেন, ‘আমি কোনো কালেই বিএনপি ছিলাম না। আমাকে বিএনপি বানিয়ে রাখা হয়েছিল। বিএনপির কোথাও আমার নাম নেই। আমার প্রথম দল আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের পক্ষেই নির্বাচনে অংশ নিতে চাই।
এছাড়া তিনি বিএনপি নয় বরং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছিলেন বলেও দাবি করেন ডিপজল। তার দাবি, ‘স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে কাউন্সিলর হয়েছিলাম বলেই আমি এত জনপ্রিয়।
প্রসঙ্গত, ১৯৮৯ সালে ‘টাকার পাহাড়’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে পা রাখেন ডিপজল। ‘সতী কমলা’ সিনেমায় প্রথম নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেন তিনি। ‘হাবিলদার’, ‘ডাকাত’ সহ বেশ কিছু সিনেমায় নায়কের ভূমিকায় দেখা গেছে তাকে। কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘তেজী’ সিনেমায় প্রথম খল চরিত্রে অভিনয় করেন এ অভিনেতা। এরপর অসংখ্য ব্যবসাসফল সিনেমায় খল চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »