Ultimate magazine theme for WordPress.

শুভ জন্মদিন ফুটবল-জাদুকর রোনালদিনহো!

0

ক্রাইম টিভি বাংলা ব্রাজিল ডেস্ক…….

একটা সময় পুরো বিশ্বকে মোহিত করে রেখেছিলেন তার পায়ের জাদুতে। সেই ফুটবল-জাদুকর রোনালদিনহোর ৪১তম আজ জন্মদিন। শুভ জন্মদিন ফুটবল-জাদুকর। এদিকে ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম—সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের শাখায় শাখায় প্রিয় তারকার জন্মদিনে ভক্তদের শুভেচ্ছা পাচ্ছেন।

১৯৯০ সালের এ দিনে রোনালদিনহো পোর্তো আলেগ্রেতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। সেই সময়ে ব্রাজিল ডুবে ছিল দুর্নীতি আর অপরাধের জালে। তবে তার দিন ভালোই কাটছিল। কিন্তু হঠাৎই তাদের পরিবারে নেমে আসে অন্ধকার। রোনালদিনহোর বাবা জোয়াও একদিন পারিবারিক সুইমিংপুলে হৃদ্‌যন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান। রোনালদিনহোর সেবিকা মায়ের জন্য সংসার বয়ে বেড়ানোটা কঠিন হয়ে পড়ে। সে সময় ব্রাজিল কিংবদন্তির বয়স ছিল মাত্র ৮ বছর। তাই বড় ভাই রবার্তোর ১৭ বছর বয়সে মায়ের কষ্ট লাঘব করতে স্কুল ছেড়ে আয়ের পথে নামেন। এজন্য তার উপায় ছিল ফুটবল খেলা। আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার রবার্তোই ছিলেন রোনালদিনহোর ফুটবল-গুরু। ভাই-ই রোনালদিনহোর কানে পুঁতে দিয়েছিলেন একটি মন্ত্র—ফুটবল শুধু খেলার জন্য খেলো না, ফুটবল একটা বিনোদন। মানুষকে বিনোদিত করতে পারলেই খেলাটা খেলতে এসো!

ভাইয়ের সেই কথা শুনেছেন রোনালদিনহো। যত দিন খেলেছেন, ফুটবল বিশ্বকে বিনোদন দিয়েছেন। সে ধারাবাহিকতায় এ তারকা একটি বিশ্বকাপ, একটি চ্যাম্পিয়নস লিগ আর দুটি লা লিগা শিরোপা জিতেছেন। এসি মিলানের হয়ে জিতেছেন সিরি ‘আ’। পিএসজি, বার্সেলোনা, এসি মিলান পর্ব শেষ করে ২০১১ সালে নাম লিখিয়েছিলেন ফ্ল্যামেঙ্গোতে, পরের বছরই চলে যান অ্যাটলেটিকো মিনেইরোতে। তাঁর কারিশমাতেই ২০১৩ সালে ক্লাবটি জিতেছিল কোপা লিবার্তোদোরেস। ব্যক্তিগত অর্জনের ডালিটাও কম পূর্ণ নয় রোনালদিনহোর—জিতেছেন ব্যালন ডি’অর ও ফিফা বর্ষসেরা ট্রফি।

প্যারাগুয়ের একটা জেলখানা নিয়ে এত খবর জানতে চাওয়ার কারণ? সেখানকার চৌকোনা একটা ঘরে যে বন্দী আছেন একজন, যিনি একটা সময় পুরো বিশ্বকে মোহিত করে রেখেছিলেন তাঁর পায়ের জাদুতে। সেই ফুটবল-জাদুকর রোনালদিনহোর আজ জন্মদিন। কিছু পাগলামির কারণে জাদুকর আজ জেলে থাকতে পারেন, তাই বলে কি ভক্তরা কি তার জন্মদিন ভুলে যেতে পারে! ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম—সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের শাখায় শাখায় তাই প্রিয় তারকার জন্মদিনে ভক্তদের অঞ্জলি-গাঁথা।ব্রাজিলের হয়ে ৯৭ ম্যাচে ৩৩ গোল করেছেন দু-দুবার ফিফার বর্ষসেরা এবং একবার ব্যালন ডি অরজয়ী রোনালদিনহো। চোখ ধাঁধানো ড্রিবলিং এবং নিখুঁত ফ্রিকিকের জন্য খ্যাতি পাওয়া এই সৃজনশীল সেলেকাও ফুটবলার ব্যক্তি জীবনে বদনামও কম কুড়াননি। মায়ের মৃত্যুর পর বেহিসাবি জীবনযাপনের জন্য ইদানীং সংবাদের শিরোনাম হচ্ছেন রোনালদিনহো। তারপরও তার জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানাতে ভুলে যাননি এক সময়ের সতীর্থ থেকে শুরু করে ভক্তরা।রোনালদিনহো সেইসব কিংবদন্তিদের একজন, যারা কখনোই মানুষের মন থেকে হারিয়ে যাবেননা। যখনই কথা উঠবে শিল্পীত ফুটবল আর ফুটবলের জাদুকরী পায়ের কাজ প্রসংগে তখনি শ্রদ্ধাভরে পেলে, ম্যারাডোনা, পুসকাস, জার্ড মুলার, গ্যারিঞ্ছা, ক্রুইফদের

সাথে উচ্চারিত হবে রোনালদিনহোর নাম।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »