Ultimate magazine theme for WordPress.

টেক্সাসের পরিস্থিতিকে ‘গুরুতর দুর্যোগ ‘ বলবেন বাইডেন

0

ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক…

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন টেক্সাসের পরিস্থিতিকে ‘গুরুতর দুর্যোগ’ বলে ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন।  তার এই ঘোষণার ফলে রাজ্যটির ত্রাণ উদ্যোগে আরো বেশি ফেডারেল তহবিল ব্যয় করার পথ পরিষ্কার হবে বলে জানিয়েছে বিবিসি। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে চলা প্রবল শৈত্য প্রবাহে এ পর্যন্ত অন্তত ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে যার মধ্যে ২১ জন টেক্সাসের বাসিন্দা। বেশি কয়েকদিন ধরে রাজ্যটির ৪০ লাখেরও বেশি বাসিন্দা বিদ্যুৎবিহীন থাকার পর স্বাভাবিক পরিস্থিতি আবার ফিরতে শুরু করেছে। তাপমাত্রাও বাড়তে শুরু করেছে। কিন্তু এখনও প্রায় এক কোটি ৩০ লাখ লোক বিশুদ্ধ পানি যোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছেন। যখন তার ‍উপস্থিতি টেক্সাসের ত্রাণ উদ্যোগের জন্য চাপ হয়ে দাঁড়াবে না তখন বাইডেন রাজ্যটি পরিদর্শনে যাবেন বলে জানিয়েছেন।

দুর্যোগ ঘোষণার জন্য টেক্সাসের অনুরোধে দ্রুত সাড়া দেওয়ার জন্য প্রেসিডেন্ট তার টিমের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বলে হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন সাকি নিশ্চিত করেছেন।

বাইডেন প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সরকারি সম্পদে তাদেরও অধিকার আছে এটি নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট টেক্সাসের হিউস্টন, অস্টিন ও ডালাসের মতো বড় বড় শহরগুলোর মেয়রদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলীয় আরো বেশ কয়েকটি রাজ্য গত সপ্তাহজুড়ে প্রচণ্ড শৈত্য প্রবাহ ও তুষার ঝড়ের কবলে পড়েছিল। সেখানেও পানি সরবরাহ ব্যবস্থায় বিঘ্ন দেখা দিয়েছে বলে রাজ্যগুলো জানিয়েছে। প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় মিসিসিপি রাজ্যের দেড় লাখ বাসিন্দার শহর জ্যাকসনে পানি সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। পাশের রাজ্য টেনেসির বৃহত্তম কাউন্টিতেও, যার মধ্যে সাড়ে ছয় লাখ বাসিন্দার মেমফিস শহরও অন্তর্ভুক্ত, একই অবস্থা তৈরি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর এরকম হিমশীতল তাপমাত্রার অভিজ্ঞতা তেমন একটা নেই। ফলে তীব্র ঠাণ্ডায় এই অঞ্চলের অনেক বাড়ির পাইপে পানি জমে সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। এরকম বাড়িগুলোর বাসিন্দারা বিশুদ্ধ পানির জন্য তুষার ফুটিয়ে নিতে বাধ্য হচ্ছেন।

গত সপ্তাহের মাঝামাঝি টেক্সাসের তাপমাত্রা ৩০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন মাইনাস ১৮ সেলসিয়াসে দাঁড়ালে ঘর উষ্ণ করার বৈদ্যুতিক যন্ত্রের ব্যবহার বেড়ে যায়, এতে হঠাৎ করে বিদ্যুতের চাহিদ অতিরিক্ত বৃদ্ধি পাওয়ায় বৈদ্যুতিক গ্রিডে বিপর্যয় ঘটে।

শুক্রবার পর্যন্ত টেক্সাসের প্রায় এক লাখ ৮০ হাজার বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ ছিল না। গত সপ্তাহের মাঝামাঝিতে হিমশীতল আবহওয়ার মধ্যে প্রায় ৩৩ লাখ বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিদ্যুৎবিহীন ছিল।

জমাট বাধা আবহওয়ায় কয়েকশত পানি সরবরাহ ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় রাজ্যটির মোট জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক, এক কোটি ৩০ লাখ লোকের সুপেয় পানি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটে।

জল জমে বরফ হয়ে যাওয়ায় বহু জায়গায় পানি সরবরাহ লাইনের পাইপ ফেটে যায়, এতে টেক্সাসের রাজধানী শহর অস্টিনে একশ ২০ কোটি লিটার পানি নষ্ট হয় বলে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন শহরটির পানি সরবরাহ বিভাগের প্রধান।

দূষিত হতে পারে আশঙ্কায় ফিল্টারের পানিসহ সব ধরনের পানি ফুটিয়ে খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) ।  বোতলজাত পানি দ্রুত সরবরাহের চেষ্টা করছেন বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। পাশাপাশি জেনারেটরও সরবরাহ করা হচ্ছে। বিয়ার উৎপাদন কারখানাগুলো ও স্থানীয় অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও সুপেয় পানি সরবরাহের উদ্যোগে সহযোগিতা করছে।

কবে নাগাদ পানি সরবরাহ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পারে সে বিষয়ে নির্দিষ্ট করে কিছু বলতে পারেননি টেক্সাসের রাজ্য কর্মকর্তারা।  শুক্রবার পর্যন্ত টেক্সাসের অধিকাংশ এলাকায় শীতকালীন ঝড়ের সতর্কতা বহাল ছিল। সামনের দিনগুলোতে তাপমাত্রা বাড়ার পূর্বাভাস দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় আবহাওয়া বিভাগ (এনডব্লিউএস) ।

কিন্তু আরেকটি শীতকালীন ঝড়ের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের পূর্বাঞ্চলগুলোতে ভারি তুষারপাত, বরফশীতল বৃষ্টি ও বরফ পড়ার মতো ঘটনা ঘটতে পারে। তাতে বিদ্যুৎ সরবরাহে বিঘ্ন ঘটতে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে। এ সময় ভ্রমণ করারও বিপজ্জনক হবে বলে সতর্ক করা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »