Ultimate magazine theme for WordPress.

এখনই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবেনা যুক্তরাষ্ট্র, ভিসা প্রদানে জরুরী প্রয়োজন অগ্রাধিকার

0

ক্রাইম টিভি বাংলা আন্তর্জাতিক ডেস্ক…

অব্যাহত মানবাধিকার লংঘন এবং বিচারবর্হিভূত হত্যাকান্ডে জড়িত বাংলাদেশের শীর্ষ কর্মকর্তাদের উপর এখনই কোনো নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে যাচ্ছেনা যুক্তরাষ্ট্র। তবে নিষেধাজ্ঞার পরিকল্পনা থেকে সরে এসেছে এমনটিও নয়। এ বিষয়ে বাইডেন প্রশাসনের দৃষ্টিভঙ্গি জানতে চাইলে স্টেট ডিপার্টমেন্টের একজন উর্দ্ধতন কর্মকর্তা এই প্রতিবেদককে জানান, “এখনই নতুন কোনো নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করা হচ্ছেনা।”

গেলো বছরের শেষাংশে বাংলাদেশে অব্যাহতভাবে মানবাধাধিকার লংঘনকারী ও বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের যুক্তরাষ্ট্রে নিষধাজ্ঞার আওতায় আনার সুপারিশ করে স্টেট ডিপার্টমেন্টে পত্র জারি করে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক সর্বদলীয় সিনেট কমিটি (ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকান)।

ভিসা প্রদানের ক্ষেত্রে কেবল জরুরী প্রয়োজনকে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে বলে মঙ্গলবার খোলাসা করে স্টেট ডিপার্টমেন্ট।

স্টেট ডিপার্টমন্টের ওয়াশিংটন ফরেন প্রেস সেন্টার আয়োজিত এক বিশেষ ব্রিফিংএ বিভিন্ন দূতাবাস এবং কনস্যুলেটে যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসী ভিসা ইস্যু সংক্রান্ত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন কনস্যুলার অ্যাফেয়ার্স এক্টিং ডেপুটি অ্যাসিস্টেন্ট সেক্রেটারি জুলি এম স্টাফট।

বিফ্রিংয়ে অংশ নিয়ে প্রথম প্রশ্নে জাস্ট নিউজের স্টেট ডিপার্টমেন্ট করসপন্ডেন্ট মুশফিকুল ফজল আনসারী জানতে চান, “আমার প্রশ্নটা বাংলাদেশ প্রসঙ্গে। আমরা জানতে পেরেছি যুক্তরাষ্ট্রর বি-ওয়ান/ বি-টু ভিসা ভিসা (ভ্রমণ ভিসা) ইস্যু হচ্ছেনা। আর এটা মূলত করোনা মহামারির কারণেই। তবে মহামারি পূর্বে অনেকেই এ ভিসার জন্য আবেদন করেছিলেন আর সেখানে খুবি সীমিত আকারে ভিসা ইস্যু করা হয়েছে। এর পেছনে কী সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ রয়েছে?”

জবাবে ডেপুটি অ্যাসিস্টেন্ট সেক্রেটারি জুলি এম স্টাফট জানান, “প্রশ্ন করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আমি সঠিকভাবে বলতে পারবোনা এ ইস্যুতে আমাদের ঢাকা দূতাবাসে কোন অবস্থানের পরিবর্তন হয়েছে কী না। আমি আপনাকে পরামর্শ দিবো আমাদের ঢাকা দূতাবাসের ওয়েবসাইটটির আপডেট অনুসরণ করতে। সেখানে আমাদের অবস্থানের সর্বশেষ আপডেট পেয়ে যাবেন। জানতে পারবেন সম্প্রতি কাদের সাক্ষাতকার নেয়া হয়েছে।”

এই প্রশ্নের বিস্তারিত জবাব পরে লিখিত পাঠান স্টেট ডিপার্টমেন্টের একজন কর্মকর্তা। এতে তিনি বলেন , “আমাদের বর্তমান সময়ের শর্ত অনুসারে অভিবাসী ভিসার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র নাগরিকদের প্রয়োজনকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে ভিসা ইস্যুর ক্ষেত্রে। তারপর নাগরিকদের আত্মীয়-স্বজন, তাদের স্বামী, স্ত্রী এবং সন্তানদের প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে। বিশেষ ধরনের কোনো ভিসা থাকলে সেটি বিবেচনা করা হবে।”

স্টেট ডিপার্টমেন্টের ওই কর্মকর্তা বলেন, “ভ্রমন ভিসার ক্ষেত্রে জরুরী প্রয়োজনীয় ব্যক্তি, কূটনীতিক, করোনভাইরাস প্রতিরোধে সহায়তাকারি, শিক্ষার্থী এবং অস্থায়ী চাকুরির আবেদনকারিদের অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে।”

দ্বিতীয় প্রশ্নে এই করসপন্ডেন্ট জানতে চান-“বাংলাদেশে অব্যাহত মানবাধিকার লংঘন, বিচারবহির্ভুত হত্যাকাণ্ড ও দূরনীতির বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ আমরা জানি। যুক্তরাষ্ট্র বিষয়গুলো গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বলে আমি মনে করি। যুক্তরাষ্ট্র সিনেটের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উভয় দলের কমিটি, জড়িত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহবান জানিয়ে স্টেট ডিপার্টমেন্টে পত্র পাঠিয়েছে।যুক্তরাষ্ট্র কী এজাতীয় কোনো নিষেধাজ্ঞা আরোপের পরিকল্পনা করছে?”

এ প্রশ্নের জবাবে ডেপুটি অ্যাসিস্টেন্ট সেক্রেটারি জানান, “ধন্যবাদ আপনাকে। প্রশ্নটির জন্য সাধুবাদ জানাচ্ছি।প্রশ্নটি আমরা গ্রহণ করলাম। এবং পরে এর আপডেট আপনাকে জানানো হবে।”

পরবর্তীতে লিখিত আকারে স্টেট ডিপার্টমেন্টের তরফে জানানো হয়, “এখনই নতুন করে কোনো নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করা হচ্ছেনা।”

সুত্র – জাস্ট নিউজ বিডি

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »