Ultimate magazine theme for WordPress.

কয়েকটি সামুদ্রিক খাবারের রেসিপি।

0

ক্রাইম টিভি বাংলা রেসিপি ডেস্ক…

সাগর-সৈকতে ঘুরে বেড়াতে কার না ভালো লাগে? ছুটিছাটায় সাগর দেখতে যেমন ভালো লাগে, তেমনি এই ফাঁকে সুস্বাদু সী-ফুডের পদ চেখে দেখতেও পিছপা হন না কেউ। জিভে জল আনা সী-ফুড যেমন সুস্বাদু, তেমনি পুষ্টিকরও। সী-ফুডের আবেদন শুধু স্বাদের জন্যই নয়, বরং সী-ফুডে রয়েছে উচ্চমাত্রার প্রোটিন, ভিটামিন ও মিনারেল এবং রয়েছে কম ফ্যাট ও কোলেস্টেরল যা একে সুস্বাস্থ্যকর করে তুলেছে। পাশাপাশি সী-ফুডে আছে উপকারী ওমেগা-থ্রি ফ্যাটি এসিড। তাই পাঠক চলুন ঘুরে আসি সুস্বাদু এবং জনপ্রিয় চমৎকার কিছু সী-ফুডের জগৎ থেকে।

শ্রিম্প বিস্ক

চিংড়ি দিয়ে বানানো এই স্যুপটি বেশ সুস্বাদু ও লোভনীয়। এটি বানানোর নানা পদ্ধতি আছে যেগুলো উপকরণ ও পদ্ধতিভেদে একে অন্যের থেকে ভিন্ন। কম সময়ে তৈরি করার বেশ সহজ একটি পদ্ধতি থাকছে এখানে।

সময়: ৩০ মিনিট, পরিবেশন: ৩ কাপ

উপকরণ

একটি ছোট কিংবা মাঝারি পেঁয়াজকুচি

  • অলিভ অয়েল – ১ টেবিল চামচ
  • ২ কোয়া রসুন কুচিয়ে নেয়া
  • ময়দা – ১ টেবিল চামচ
  • পানি – ১ কাপ
  • হেভি হুইপিং ক্রিম – আধা কাপ
  • মরিচ গুঁড়া – ১ টেবিল চামচ
  • সোডিয়াম-ফ্রি চিকেন স্টক – ২ কাপ (চাইলে ফিশ কিংবা শ্রিম্প স্টকও ব্যবহার করতে পারেন)
  • জিরা গুঁড়া – আধা চা চামচ
  • ধনে গুঁড়া – আধা চা চামচ
  • চিংড়ি – ২৩০ গ্রাম, খোসা ছাড়িয়ে, পরিষ্কার করে রগ বের করে নেয়া।
  • সাওয়ার ক্রিম – আধা কাপ
  • সিলান্ত্রো, ভাজা চিংড়ি, আভোক্যাডো- সাজানোর জন্য (ঐচ্ছিক)
  • প্রণালী

    ১) সসপ্যানে অলিভ অয়েল দিয়ে তাতে পেঁয়াজ দিয়ে ভাজতে হবে। পেঁয়াজ নরম হয়ে গেলে তাতে রসুন কুচি যোগ করে এক মিনিট ভাজুন।

    ২) এবার ময়দা ঢেলে ভালোভাবে মেশান। মেশানো হয়ে গেলে একে একে পানি, ক্রিম, মরিচ গুঁড়া, চিকেন স্টক, জিরা গুঁড়া, ধনে গুঁড়া দিয়ে মেশান এবং ফুটে ওঠা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ফুটে উঠলে চুলার আঁচ কমিয়ে ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন ৫ মিনিট।

    ৩) এবার বড় চিংড়ি হলে পরিষ্কার করে ছোট ছোট করে কাটুন। ছোট হলে পরিষ্কারের পর সরাসরি ব্যবহার করা যাবে। চিংড়ির টুকরোগুলো স্যুপে দিয়ে দিন এবং রান্না করতে থাকুন যতক্ষণ না গোলাপি বর্ণ ধারণ করে।

    ৪) এবার সাওয়ার ক্রিমের বাটিতে আধা কাপ স্যুপ তুলে মিশিয়ে সম্পূর্ণ মিশ্রণটি স্যুপের পাত্রে ঢেলে মিশিয়ে নিন। ভালোভাবে মেশানো হলে চুলার আঁচে কিছুক্ষণ রাখুন (ফোটাবেন না)।

    ৫) হয়ে গেলে নামিয়ে ধনেপাতা কিংবা সিলান্ত্রো, আভোক্যাডো এবং ভেজে রাখা চিংড়ি দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন গরম গরম মজাদার শ্রিম্প বিস্ক।

  • ক্র্যাব স্ট্রেচ

  • পরিবেশন– মেইন কোর্স হিসেবে ৩ জন, স্টার্টার হলে ৪ জনের জন্য।

    সময়– ২৫ মিনিট এবং ওভেনের জন্য ১৫-২০ মিনিট

    ক্যালরি: ২৫৫ কিলোক্যালরি

    উপকরণ

    • অলিভ অয়েল – ভাজার জন্য
    • পেঁয়াজ কুচি – ১টা পেঁয়াজের
    • করগেট (জুচ্চিনি) – ১ টি, স্লাইস করা
    • ফেনেল বাল্ব – ১টি ছোট করে কুচি করা
    • চেরি টমেটো – ২৫০ গ্রাম
    • রসুন – বড় দুই কোয়া থেতো করা
    • সাদা আঙুরের রস – ১০০ মিলি
    • গ্রীন বিনস – ১০০ গ্রাম ট্রিম করে নেয়া
    • ক্রিম ফ্রেশ – ১৫০ গ্রাম (ফ্রেশ ক্রিম নয়)
    • একটি লেবুর রস
    • তাজা সাদা ক্র্যাবমিট – ১৫০ গ্রাম
    • ড্রাই করা ব্রেডক্রাম্ব – ৩০ গ্রাম
    • গ্রেট করা পারমেসিয়ান চিজ – ৪০ গ্রাম
    • লবণ ও গোলমরিচ গুঁড়া – স্বাদমতো
    • ১.৩ লিটারের ওভেনপ্রুফ ডিশ

    প্রণালী

    ১) ওভেন ২০০° সেলসিয়াস এ হিট করুন।

    ২) চুলায় ফ্রাইং প্যানে তেল দিয়ে গরম হলে পেঁয়াজকলি কুচি দিয়ে ভাজুন ৫ মিনিট। নরম হতে শুরু করলে তাতে করগেট এবং ফেনেল কুচি দিয়ে দিন। এখন দশ মিনিট ভাজুন।

    ৩) এবার টমেটো ও রসুন যোগ করে একটু নেড়ে তাতে সাদা আঙুরের রস মিশিয়ে নেড়ে রান্না করুন ৩-৪ মিনিট। তারপর তাতে বিনগুলো ঢেলে দিন। স্বাদমতো লবণ ও গোলমরিচ গুঁড়া যোগ করুন। বলক আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

    ৪) এবার বলক উঠলে ২-৩ মিনিট ফোটান। এরপর চুলা বন্ধ করে মিশ্রণটিতে ক্রিম ফ্রেশ এবং লেবুর রস যোগ করুন।

    ৫) এবার মিশ্রণটিকে ওভেনপ্রুফ ডিশে ঢেলে দিন। টপিং হিসেবে উপরে দিন ক্র্যাবমিট এবং ব্রেডক্রাম্ব। প্রয়োজন মতো লবণ ও গোলমরিচ গুঁড়া যোগ করুন। উপরে ছড়িয়ে দিন গ্রেট করা পারমেসিয়ান।

    ৬) এবার ১৫-২০ মিনিট বেক করুন যতক্ষণ না সোনালি বর্ণ ধারণ করে।

    ৭) পরিবেশন করুন মজাদার ক্র্যাব স্ট্রেচ।

    কোকোনাট অ্যান্ড ক্র্যাব মাসালা কারি

    পরিবেশন – ৩ জনের জন্য

    সময় – ৩০ মিনিট

    উপকরণ

    • কাঁকড়া – আধা কেজি
    • পেঁয়াজ – মাঝারি ২টি কুচি করা
    • টমেটো – মাঝারি ২টি কেটে রাখা
    • কারি পাতা – ৫-৬টি
    • আদা-রসুন বাটা – ১ টেবিল চামচ
    • তেজপাতা – একটি
    • দারুচিনি – ১ ইঞ্চির টুকরো একটি
    • এলাচ – ৪ টি
    • ফেনেল বীজ – ২ চা চামচ
    • হলুদ গুঁড়া – আধা চা চামচ
    • লাল মরিচ গুঁড়া – ২ চা চামচ
    • ধনে গুঁড়া – ২ চা চামচ
    • গোলমরিচ গুঁড়া – সিকি চা চামচ
    • তেল – ৩ টেবিল চামচ
    • লবণ – স্বাদমতো

    মশলার মিশ্রণের জন্য

    • কোড়ানো নারিকেল – আধা কাপ
    • ফেনেল বীজ – ২ চা চামচ
    • কারিপাতা – ৫-৬টি
    • কাঁচামরিচ – ৪-৫টি

    প্রণালী

    ১) কাঁকড়া ধুয়ে তার শক্ত খোলস ছাড়িয়ে নিন। আঁশ এবং পাঁজরের মতন অংশগুলি (Dead Man’s Fingers) ছাড়িয়ে ফেলুন। গলার কাছের পাকস্থলির মতো অংশ ফেলে দিন। মাংস আলাদা করে পানিতে ধুয়ে নিন এবং ভালোমতো পরিষ্কার করে ধুয়ে রাখুন।

    ২) চওড়া প্যানে তেল গরম করুন, গোটা মশলাগুলো (তেজপাতা, এলাচ, দারুচিনি, ফেনেল বীজ) গরম তেলে ফোঁড়ন দিন। ফোঁড়ন দেয়া হলে তাতে কারিপাতা ও পেঁয়াজ যোগ করে ভাজুন যতক্ষণ না তা নরম ও স্বচ্ছ হতে শুরু করে এবং কাঁচা গন্ধটা চলে যায়।

    ৩) এখন তাতে আদা-রসুনবাটা দিন এবং কাঁচা গন্ধটা চলে যাওয়া পর্যন্ত নাড়ুন। থেতলে নেয়া টমেটোর টুকরোগুলো দিয়ে ভালভাবে মিশিয়ে ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন থকথকে হবার আগ পর্যন্ত।

    ৪) এখন গুঁড়া মশলা গুলো (হলুদ গুঁড়া, মরিচ গুঁড়া, গোলমরিচ গুঁড়া, ধনে গুঁড়া এবং লবণ) যোগ করে মিশিয়ে আবারো ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন তেল ওপরে উঠে আসা পর্যন্ত।

    ৫) এবার কাঁকড়ার টুকরোগুলো তাতে যোগ করে ভালভাবে মশলার মিশ্রণটির সাথে মেশান। চাইলে খুবই সামান্য পরিমাণে পানি ছিটাতে পারেন তাতে। এরপর আবারো ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন।

    ৬) এই ফাঁকে পেষা মশলার মিশ্রণের জন্য কোড়ানো নারিকেল, কারিপাতা, ফেনেল বীজ ও কাঁচামরিচ অল্প পানিসহ মিক্সার-গ্রাইন্ডারে দিয়ে মসৃণ পেস্ট করে নিন।

    ৭) কাঁকড়ার মাংস কমলা বর্ণ ধারণ করলে (৫-৬ মিনিটে হয়ে যাবার কথা) তাতে নারিকেল-মসলার পেস্ট দিয়ে মিশিয়ে মধ্যম আঁচে ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন আরো ৫ মিনিট। লবণ চেখে দেখুন। ঠিক থাকলে উপরে আরো কারিপাতা ছিটিয়ে দিন।

    ৮) সাদা ভাতের সাথে পরিবেশন করুন মজাদার কোকোনাট অ্যান্ড ক্র্যাব মাসালা কারি।

    সী-ফুড পায়েলা

    এই খাবারটি উৎপত্তিস্থল স্পেন হলেও এটির জনপ্রিয়তা পৃথিবীময় ছড়িয়ে পড়েছে। হরেক রকম সী-ফুড ও রাইসেরসমন্বয়ে তৈরি হওয়া এ খাবারটি বিপুল সমাদৃত।

    উপকরণ

    • ফ্রোজেন ক্যালামারি রিংস – ২৩০ গ্রাম
    • চিংড়ি রগ ছাড়িয়ে পরিষ্কার করে নেয়া – ৪৫০ গ্রাম
    • ক্ল্যাম ঘষে পরিষ্কার করে নেয়া – ১২টি
    • কুচোনো পেঁয়াজ – ১ কাপ
    • টমেটো ছিলে, বীজ ছাড়িয়ে, ডাইস করে কাটা – ২ কাপ
    • রসুন থেতো করে নেয়া – আধা টেবিল চামচ
    • লাল বেল পেপার- ছোট ১টি অথবা বড় হলে তার অর্ধেক লম্বা লম্বা ও মোটা করে কেটে নেয়া
    • পার্সলে কুচি – ১/৪ কাপ
    • চিকেন বা ফিশ অথবা শ্রিম্প স্টক- ৪-৬ কাপ (গরম)
    • গুঁড়ো করা জাফরান – ১/৪ অথবা ১/২ চা চামচ
    • সুইট রেড পাপরিকা – ১ চিমটি (ঐচ্ছিক)
    • ফ্রোজেন মটরশুঁটি – ১ কাপ
    • সুগন্ধি চাল- ২ ১/৪ কাপ
    • লবণ এবং কালো গোলমরিচ – স্বাদমতো
    • প্রণালী

      ১) পায়েলা প্যানে অলিভ অয়েল মধ্যম আঁচে গরম করুন, তেল গরম হলে পেঁয়াজকুচি দিয়ে ১ মিনিট ভাজুন।

      ২) এবার প্যানে ক্যালামারি কুচি দিয়ে দিন এবং ৫ মিনিট রান্না করুন। কিছুক্ষণ পর পর নেড়ে নেড়ে রান্না করুন।

      ৩) এবার চিংড়িগুলো দিয়ে দিন এবং ৩ মিনিট রান্না করুন। খেয়াল রাখবেন চিংড়ির দুই পাশই যেন রান্না হয়।

      ৪) এখন রসুন থেতো, লাল বেলপেপার এবং পার্সলে কুচি দিয়ে দিন এবং ভালোভাবে নেড়ে মিশিয়ে ২ মিনিট রান্না করুন।

      ৫) তারপর টমেটো কুচি দিয়ে রান্না করতে থাকুন যতক্ষণ না টমেটো গলে আলাদা হয়ে আসে।

      ৬) এবার সী-ফুডগুলো এবং লাল বেলপেপার কুচি গুলো সেখানে থেকে প্লেটে তুলে নিয়ে আলাদা স্থানে রাখুন। এক্ষেত্রে বন্ধ করা ওভেনের ভেতর রাখতে পারেন, এতে সী-ফুডগুলো গরম থাকে।

      ৭) এবার প্যানে থাকা মিশ্রণে ৪ কাপ ফিশ কিংবা অন্য স্টক দিয়ে, জাফরান গুঁড়ো এবং ফ্রোজেন মটরশুঁটি দিয়ে দিন এবং ফোটান।

      ৮) ফুটে ওঠার পর এতে লবণ ঠিক আছে কিনা দেখে নিন। প্রয়োজনমতো লবণ ও গোলমরিচ যোগ করুন।

      ৯) এবার ওতে চাল দিয়ে দিন এবং কিছুক্ষণ নেড়ে তাতে ক্ল্যামগুলো এমনভাবে দিয়ে দিন যেন তা পাত্রের মাঝখানে থাকে। মধ্যম মৃদু আঁচে সেটিকে ১০-১৫ মিনিট ঢেকে রান্না করুন যতক্ষণ না চাল পুরোপুরি সেদ্ধ হয়ে ভাত হয়ে যাচ্ছে এবং ক্ল্যামগুলো খুলে যাচ্ছে।

      ১০) চুলার আঁচ কমিয়ে মৃদু আঁচে রান্না করুন আরো ১০ মিনিট। প্রয়োজন হলে একটু একটু করে পানি বা স্টক যোগ করতে পারেন৷ যদিও আসল পায়েলার তলায় টোস্ট করা রাইস থাকে কিন্তু সেটা অনেকের কাছেই খুব একটা সুখকর নয় বিধায় প্রয়োজনমতো তরল যোগ করে রাইস তৈরি করে নিতে পারেন।

      ১১) ভাত হয়ে গেলে এবার বেলপেপার এবং সী-ফুডগুলো রাইসে দিয়ে দিন এবং ভালোভাবে মেশান। কিছু বেলপেপার ও চিংড়ি সাজানোর জন্য তুলে রাখতে ভুলবেন না।

      ১২) পরিবেশনের আগ পর্যন্ত খাবার গরম রাখতে চাইলে পাত্রের মুখ এলুমিনিয়াম ফয়েল দিয়ে ঢেকে দিতে পারেন। এভাবেই তৈরি হয়ে গেল মজাদার সী-ফুড পায়েলা।

      সী-ফুড চাওডার

      সময় – ২ ঘন্টা ১০ মিনিট

      উপকরণ

      • চিংড়ি – ৪৫০ গ্রাম, খোসা ছাড়িয়ে রগ আলাদা করে পরিষ্কার করে রাখা (খোসাগুলো তুলে রাখুন স্টক তৈরি করার জন্য)
      • স্ক্যালোপ- ২৩০ গ্রাম
      • মঙ্কফিশ – ২৩০ গ্রাম
      • কাঁকড়ার মাংস- ২৩০ গ্রাম
      • আনসল্টেড বাটার – ১১৫ গ্রাম
      • গাজর – ছিলে মাঝারি টুকরো করা ১ কাপ
      • হলুদ পেঁয়াজ কুচি – আধা কাপ
      • সেলেরি কুচি – ১ কাপ
      • ছোট আলু মাঝারি করে কাটা – ১ কাপ
      • ভুট্টার শাঁস – আধা কাপ
      • ময়দা – ১/৪ কাপ
      • সী-ফুড স্টক (কিভাবে বানাতে হবে পরবর্তীতে তার উল্লেখ আছে)
      • হেভি ক্রিম – দেড় টেবিল চামচ (ঐচ্ছিক)
      • পার্সলে কুচি
      • লবণ এবং গোলমরিচ গুঁড়ো স্বাদমতো

      সী-ফুড স্টকের জন্য

      • ভালো অলিভ অয়েল – ২ টেবিল চামচ
      • চিংড়ির খোসা – ৪৫০ গ্রাম চিংড়ির
      • হলুদ পেঁয়াজকুচি – ২ কাপ
      • গাজর না ছিলে কুচি করা – ২টি
      • সেলেরি – ৩ টি কুচি করা
      • বড় রসুন কোয়া – ২টি, কুচোনো
      • সাদা আঙ্গুরের রস – ১/২ কাপ
      • টমেটো পেস্ট – ১/৩ কাপ
      • কোশার সল্ট – ১ টেবিলচামচ
      • গোলমরিচ গুঁড়া – দেড় চা চামচ
      • থাইম বোঁটাসহ – ১০টি
      • প্রণালী (স্টকের জন্য)

        একটি পাত্রে মাঝারি আঁচে তেল গরম করুন। তাতে চিংড়ির খোসা, পেঁয়াজ, গাজর এবং সেলেরি দিয়ে ১৫ মিনিট ভাজুন কিংবা যতক্ষণ না বাদামি বর্ণ ধারণ করে। রসুন যোগ করে রান্না করুন আরো দুই মিনিট। এবার পানি, সাদা আঙুরের রস এবং টমেটো পেস্ট, লবণ, গোলমরিচ এবং থাইম যোগ করুন। এবার ফোটান, ফুটে উঠলে রান্না করুন ১ ঘণ্টা। একটি ছাঁকনি বা চালুনি দিয়ে ছেঁকে নিন। স্টকের তরলে থাকা শক্ত জিনিসগুলোতে চাপ দিয়ে তার থেকেও তরল বের করুন। আপনার কাছে যতটুকু স্টক থাকবে তার সাথে চাইলে পানি বা কোনোকিছুর রস যোগ করে আপনি পরিমাণ পরিবর্তন করতে পারেন।

        রন্ধন প্রণালী

        ১) চিংড়ি, স্ক্যালোপ এবং মঙ্কফিশ ছোট করে কেটে কাঁকড়ার মাংসের সাথে একটি বোলে রাখুন।

        ২) মোটা তলাযুক্ত পাত্রে মাখন দিন, গলে গেলে গাজর, পেঁয়াজ, সেলেরি, আলু এবং ভুট্টার শাঁস দিয়ে মধ্যম মৃদু আঁচে ১৫ মিনিট ভাজুন।

        ৩) ময়দা যোগ করুন এবং আঁচ কমিয়ে মৃদু করে দিয়ে নেড়ে নেড়ে রান্না করুন তিন মিনিট।

        ৪) এবার সী-ফুড স্টক দিয়ে ফোটান। ফুটে উঠলে সি-ফুডগুলো দিয়ে আঁচ কমিয়ে ঢাকনা খুলে রান্না করুন ৭-১০ মিনিট যতক্ষণ না মাছটি রান্না হয়ে যায়।

        ৫) এবার চাইলে হেভি ক্রিমটা যোগ করতে পারেন। পার্সলে যোগ করুন। স্বাদমতো লবণ ও গোলমরিচ গুঁড়া দিন।

        ৬) পরিবেশন করুন মজাদার সি-ফুড চাওডার।

        স্যামন ক্রকেটস

        সময়: ২০ মিনিট

        উপকরণ

        • অর্গানিক ক্যানোলা মেয়োনেজ – সিকি কাপ
        • লেবুর রস – ৪ চা চামচ (দু’ভাগ করে রাখা)
        • দিজন মাস্টার্ড – আধা চা চামচ (দু’ভাগ করে রাখা)
        • পেঁয়াজকলি কুচি – সিকি কাপ
        • লাল বেলপেপার মিহিকুচি – ২ টেবিল চামচ
        • গার্লিক পাউডার – আধা চা চামচ
        • লবণ – ১/৪ চা চামচ
        • শুকনোমরিচ থেতো করা – ১/৮ চা চামচ।
        • ক্যানড (রান্না করা) পিঙ্ক স্যামন মাছ – ১৭০ গ্রাম
        • ডিম – বড় ১টি, হালকা বিট করে নেয়া
        • প্যানকো (জাপানি ব্রেডক্রাম্ব) – ১ কাপ
        • ক্যানোলা অয়েল – ১ টেবিল চামচ
        • তাজা পার্সলে কুচি – ১ চা চামচ
        • কেপার কুচি – ১ চা চামচ
        • রসুন কুচি – আধা চা চামচ
        • লবণ – ১/৮ চা চামচ
        • প্রণালী

          ১) স্যামনের তরল অংশ ফেলে দিয়ে টুকরো করে নিন। এবার একটি পাত্রে ২ টেবিল চামচ মেয়োনেজ, ১ টেবিল চামচ লেবুর রস, দেড় চা চামচ দিজন-মাস্টার্ড এবং পরবর্তী ৭টি উপকরণ (ডিম পর্যন্ত) দিয়ে ভালোমতো নাড়িয়ে মেশান। এবার তাতে প্যানকো যোগ করে মেশান। মিশ্রণটিকে গোল করে চেপে চেপে চ্যাপ্টা আকার দিয়ে প্যাটি তৈরি করুন।

          ২) বড় প্যানে মধ্যম আঁচে তেল গরম করুন, চ্যাপ্টা করে বানানো প্যাটিগুলি দিয়ে প্রতি পিঠে ৫ মিনিট করে অথবা বাদামি হওয়া পর্যন্ত ভাজুন।

          ৩) সসের জন্য বাকি মেয়োনেজ, লেবুর রস, মাস্টার্ড, পার্সলে, কেপার, রসুন, লবণ যোগ করে ভালোমতো মেশান।

          ৪) এবার সসসহ গরম গরম পরিবেশন করুন মজাদার স্যামন ক্রকেটস।

          কাজেই পাঠক এবার রেসিপি অনুযায়ী ঝটপট বানিয়ে ফেলুন এই মজাদার সী-ফুডগুলো আর ভেসে যান সামুদ্রিক স্বাদ, রসনা ও তৃপ্তির মোহময় আনন্দে!

          বি. দ্র. – অনেকেরই সী-ফুড অ্যালার্জি থাকে। তাই সী-ফুড খাবার আগে প্রয়োজনীয় ডাক্তারি পরীক্ষা করে জেনে নেবেন আপনি কোনোটির প্রতি অ্যালার্জিক কিনা! অসতর্কতা কিংবা অজ্ঞানতাবশত খেলে তা প্রাণঘাতী পর্যন্ত হতে পারে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »