Ultimate magazine theme for WordPress.

খাশোগি ইস্যুতে সউদীকে সমর্থন আরব দেশগুলোর

0

©ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক♦  সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ড ইস্যুতে এবার সউদী আরবের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে মিত্র আরব দেশগুলো। আরব নিউজ জানিয়েছে, মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার তদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যানে সউদীকে সমর্থন দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও কুয়েত।
শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) টুইটারে ‘আমরা সবাই মোহাম্মদ বিন সালমান’ হ্যাশট্যাগ তৈরি করে সউদী যুবরাজের প্রতি সমর্থন জানান তার সমর্থকরা। তাদের দাবি, মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদনে জামাল খাশোগি হত্যায় যুবরাজকে দায়ী করা হলেও জোরালো কোনো সাক্ষ্যপ্রমাণ দিতে পারেনি তারা।
সউদী যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানের সমর্থকেরা টুইটারে নতুন হ্যাশট্যাগ তৈরি করে তাঁর প্রতি সমর্থন জানাচ্ছেন। সমর্থকদের ভাষ্য, মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদনে জামাল খাসোগিকে হত্যায় যুবরাজকে দায়ী করা হলেও জোরালো কোনো সাক্ষ্যপ্রমাণ দিতে পারেনি। ‘আমরা সবাই মোহাম্মদ বিন সালমান’ এটি একটি হ্যাশট্যাগ। ভিন্নমতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যায় সউদী আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে দায়ী করে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা প্রতিবেদন প্রকাশের পর টুইটার এই হ্যাশট্যাগ ছড়িয়েছে। ওই প্রতিবেদন প্রকাশের কয়েক মিনিট পরই তাঁর সমর্থকেরা যুবরাজের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন।
যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সমর্থকেরা যেমন সরব হয়েছেন, তেমনি দেশটির বিশ্লেষকেরাও এই ঘটনায় সরব। সরকারপন্থী বিশ্লেষকেরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের পক্ষে বিবৃতি দিয়েছেন। তাঁদেরই একজন আলি শিহাবি। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে আরাবিয়া ফাউন্ডেশনের সাবেক প্রধান তিনি। মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদন প্রকাশের পর তিনি টুইটারে লিখেছেন, এই প্রতিবেদনে এমন কিছু নেই, যা আগে বলা হয়নি। এছাড়া যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে দোষী সাব্যস্ত করার মতো কোনো তথ্যপ্রমাণ এতে নেই। যুবরাজের বিরুদ্ধে জোরালো কোনো প্রমাণ এই প্রতিবেদনে নেই।
একই ধরনের মন্তব্য করেছেন আবদুল রহমান আল-রাশেদ। সরকারনিয়ন্ত্রিত একটি সংবাদমাধ্যমে কলাম লেখেন তিনি। তিনিও টুইটারে লিখেছেন, যুবরাজকে দোষী সাব্যস্ত করার মতো কোনো তথ্যপ্রমাণ মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদনে নেই।
মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার এই প্রতিবেদন নিয়ে সউদী আরবের সংবাদপত্র ও টেলিভিশনগুলো কোনো প্রতিবেদন প্রকাশ করেনি। সউদীর রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম আল আরাবিয়ায় শুধু সন্ধ্যার খবরে ছোট করে একটি প্রতিবেদন প্রচার করা হয়েছে। তবে এতেও তথ্যপ্রমাণের বিষয়টিকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। আর দেশটির পত্রিকা ওকাজ শিরোনাম করেছে ‘দেশ সুরক্ষিত’। এর সঙ্গে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের একটি বড় ছবি জুড়ে দিয়েছে।
২০১৮ সালের অক্টোবরে তুরস্কের সউদী কনস্যুলেটে হত্যা করা হয় সউদী রাজ পরিবারের কট্টর সমালোচক হিসেবে পরিচিত সাংবাদিক জামাল খাশোগি। শুক্রবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ হত্যার অনুমতি দিয়েছিলেন সউদী ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান বলে জানায় মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা। যদিও তা ‘মিথ্যা এবং অগ্রহণযোগ্য’ উল্লেখ করে প্রত্যাখ্যান করে সউদী আরব। সূত্র : আরব নিউজ

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »