Ultimate magazine theme for WordPress.

চীনের সেই ‘৫০ শতাংশ কার্যকর’ ভ্যাকসিনই নিচ্ছে ব্রাজিল!

বৃহস্পতিবার সাও পাওলোর গভর্নর জোয়াও ডোরিয়া বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, সিনোভ্যাকের তৈরি ভ্যাকসিন করোনাভ্যাকের বাড়তি দুই কোটি ডোজ কেনার বিষয়ে তারা আলাপ চালিয়ে যাচ্ছেন।

0

©ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক♦

ব্রাজিলে চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেকের তৈরি করোনা ভ্যাকসিনের স্মৃতি খুব একটা সুখকর নয়। লাতিন আমেরিকার দেশটিতে ট্রায়ালে এর সাফল্য দেখা গেছে মাত্র ৫০ দশমিক ৪ শতাংশ। তবে বিকল্প না পেয়ে এখন সেই ভ্যাকসিনের দিকেই হাত বাড়াচ্ছে ব্রাজিলিয়ান প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার সাও পাওলোর গভর্নর জোয়াও ডোরিয়া বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, সিনোভ্যাকের তৈরি ভ্যাকসিন করোনাভ্যাকের বাড়তি দুই কোটি ডোজ কেনার বিষয়ে তারা আলাপ চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া সাও পাওলোর বুটানটান বায়োমেডিক্যাল ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত করোনাভ্যাকের ১০ কোটি ডোজ প্রাপ্তি নিশ্চিত হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের পর বিশ্বের মধ্যে করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে ব্রাজিলে। বৈশ্বিক এ মহামারিতে দেশটিতে এপর্যন্ত ২ লাখ ৩০ হাজারের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন।

সেখানে মানাউস শহরে ছড়িয়ে পড়া করোনার একটি নতুন ধরন বেশি সংক্রামক প্রমাণিত হয়েছে। জঙ্গলাকীর্ণ শহরটিতে রীতিমতো তাণ্ডব চালাচ্ছে ধরনটি।

ভয়াবহ এই সংক্রমণ রোধে ইতোমধ্যে জরুরি ভ্যাকসিন প্রদান কর্মসূচি হাতে নিয়েছে ব্রাজিল। সিনোভ্যাক ছাড়া দেশটিতে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পাওয়া দ্বিতীয় ভ্যাকসিন হচ্ছে ব্রিটিশ সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকার।

ব্রাজিলিয়ান প্রেসিডেন্ট জেইর বোলসোনারো বরাবরই চীনের সমালোচক এবং চীনা ভ্যাকসিনে খুব একটা ভরসা নেই- একথা বহুবার বলেছেন। তবে বিকল্প না পেয়ে তার সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সিনোভ্যাকের দিকে হাত বাড়ানোর পর কিছুটা সুর বদলেছেন তিনি।

ব্রাজিল সরকারের অর্থায়নে ফিওক্রাজ বায়োমেবিক্যাল সেন্টারে উৎপাদিত অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিনের সরবরাহ এখনো শুরু হয়নি। তবে ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে ইতোমধ্যে করোনাভ্যাক পাঠিয়ে দিয়েছে বুটানটান ইনস্টিটিউট।

গভর্নর ডোরিয়া জানিয়েছেন, সপ্তাহ বা ১০ দিনভিত্তিতে চীন থেকে ভ্যাকসিন তৈরির উপকরণ পাওয়ার আশা করছে বুটানটান কর্তৃপক্ষ।

দেশব্যাপী বিতরণের জন্য এখন পর্যন্ত বুটানটানের সঙ্গে ৪ কোটি ৬০ লাখ ডোজ চীনা ভ্যাকসিনের বিষয়ে চুক্তি হয়েছে ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের। ডোরিয়া জানিয়েছেন, তিনি আরো ৫ কোটি ৪০ লাখ ডোজ পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী।

তবে গর্ভনর জানিয়েছেন, সরবরাহ করা করোনাভ্যাক ডোজের দাম এখনো পরিশোধ করেনি ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। চলতি মাস শেষ হওয়ার আগেই যদি এই অর্থ পরিশোধ করা না হয়, তাহলে বুটানটান থেকে আর কোনো ভ্যাকসিন পাওয়ার পথ বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »