Ultimate magazine theme for WordPress.

ব্রিকসের ব্যাংকে যোগ দিচ্ছে বাংলাদেশ

0

©ক্রাইম টিভি বাংলা ডেস্ক ♦ 

ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকার জোট (ব্রিকস) প্রতিষ্ঠিত নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এনডিবি) সদস্য হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) এনডিবি প্রেসিডেন্ট মার্কোস প্রাদো ট্রয়জোর সঙ্গে এক ভার্চুয়াল সভায় যুক্ত হয়ে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ কথা জানিয়েছেন।

ওই বৈঠকে পারস্পারিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনার পাশাপাশি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক নানা অর্জন তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, অর্থনৈতিক খাতে বাংলাদেশ ১২ বছরের অভাবনীয় অর্জন করেছে। এনডিবি’র সদস্য পদের যে শর্তগুলো রয়েছে তার সবগুলোই বাংলাদেশ পূরন করতে পারবে। তাই, তিনি আশা করেন অচিরেই বাংলাদেশ এনডিবি’র সদস্য পদ অর্জন করতে পারবে।

সে সময় এনডিবি’র প্রেসিডেন্টও বাংলাদেশের অগ্রগতির ব্যাপারে একমত পোষন করে বলেন, তিনি সক্রিয়ভাবে বাংলাদেশর প্রস্তাব বিবেচনা করবেন। দ্রুতই তিনি পরিবারসহ বাংলাদেশ সফর করবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের ২১ জুলাই আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে এনডিবি। ব্যাংকের মোট মূলধন ১০ হাজার কোটি মার্কিন ডলার। প্রাথমিক মূলধন ৫ হাজার কোটি ডলার। ২০১৬ সাল থেকে অবকাঠামো এবং টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে ব্রিকসভুক্ত দেশগুলোতে ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ দিয়েছে এনডিবি।

এর বাইরেও ব্যাংকটি অবকাঠামো, সেচ, পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা, পয়ঃনিষ্কাশন, নবায়নযোগ্য জ্বালানি এবং নগর উন্নয়ন খাত সংশ্লিষ্ট প্রকল্প বাস্তবায়নে ঋণ দিয়ে থাকে।

ইতোমধ্যেই, কোভিড-১৯ মহামারির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সদস্য দেশগুলোর কার্যক্রমে ব্যাংকটি অংশীদার হয়েছে। ২০২০ সালে ব্যাংকটি একসঙ্গে ৭২ প্রকল্পে ২৫.৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণের অনুমোদন দিয়েছে।

এনডিবি’র সদস্য হওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশের জন্য ব্যাংকের পণ্য এবং পরিষেবা ক্রয় কার্যক্রমে অংশগ্রহণ, সহনীয় সুদ হারে ঋণ নেওয়ার সুযোগ তৈরি, ব্যাংকের কৌশল, নীতি, পদ্ধতি ও কার্যক্রমে অংশগ্রহনের সুযোগ এবং নাগরিকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।

অর্থ মন্ত্রণালয় মনে করছে, ২০২৬ সালে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উন্নীত হওয়ার পর সহজ শর্তে ঋণ পাওয়ার সুযোগটি সীমিত হয়ে যাবে। তাছাড়া, পাচঁ বছর মেয়াদী অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা (২০২১-২০২৫), টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি), ভিশন-২০৪১, ডেল্টাপ্ল্যান বাস্তবায়ন এবং কোভিড-১৯ পরবর্তী চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবিলায় এনডিবি বাংলাদেশের জন্য একটি নতুন অর্থায়নের উৎস হিসেবে কাজ করবে।

এছাড়াও, ওই ভার্চুয়াল সভায় এনডিবিতে বাংলাদেশের ভূমিকা, নতুন ব্যাংকের ঋণের শর্তাবলীসহ বিনিয়োগ খাত এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। পরবর্তীতে এনডিবি’র সদস্যভুক্তির মূল কার্যক্রমে অংশ নিতে একটি কারিগরি কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ওই সভায় বাংলাদেশ সরকারের অর্থ বিভাগ, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ এবং এনডিবি’র সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও যুক্ত ছিলেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »