Ultimate magazine theme for WordPress.

ভার্সিটিতে পড়ামু আর আমি জানি না, এইডা কেমন কথা : ডিপজল

0

©ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক ♦

অভিনেতা মনোয়ার হোসেন দেশের শীর্ষ একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াবেন। ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটের একটি স্ক্রিনশট সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। শুধু তাই নয়, কোনো কোনো অনলাইন পোর্টাল সংবাদও প্রকাশ করে ফেলেছে ফেসবুকের ওই স্ক্রিনশটের সূত্র ধরে। ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট যাচাই পর্যন্ত করার প্রয়োজন মনে না করে ফেসবুকে ডিপজলের শিক্ষক শেয়ার করছেন নেটিজেনরা। বিষয়টিকে ভুয়া বলে কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল।

বৃহস্পতিবার রাতে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট গ্রুপগুলোতে প্রথম ডিপজলের শিক্ষকতা বিষয়ের স্ক্রিনশটটি ছড়িয়ে পড়ে। স্ক্রিনশটে দেখা যায়, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে শিক্ষকতা করছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল। শুধু তা-ই নয়, মনোয়ার হোসেন ডিপজলের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ই-মেইল অ্যাকাউন্টও যুক্ত করা হয়েছে। যাকে কেন্দ্র করে এত কিছু অথচ তিনিই জানেন না কিছু।

শিক্ষকতা করার বিষয়টিকে ভুয়া বলে উল্লেখ করে শুক্রবার বিকেলে ডিপজল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এত কিছু শুনলাম আপনার কাছে আর আমিই কিছু জানলাম না। আমি ভার্সিটিতে পড়ামু আর আমি জানুম না, এইডা কেমন কথা? এইগুলান ভুয়া, আমার লগে কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের কেউ যোগাযোগ করে নাই। ক্যান ইন্টারনেটে ছড়াইতাছে আমি কিচ্ছু জানি না। এসব মনে হয় পোলাপানের কাম।’

স্ক্রিনশটে সিনেমা ম্যানেজমেন্টের ওপর সপ্তাহে দুদিন ক্লাস নেবেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল- এমন তথ্য দেওয়া থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট খুঁজে এ রকম কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। সপ্তাহের প্রতি রবিবার এবং বুধবার সকাল ১১টা থেকে ১২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত ক্লাস নেবেন ডিপজল- স্ক্রিনশটে এমন তথ্য জুড়ে দেওয়া হয়েছে।

তবে আর্টস অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্সের অধীনে ‘মিডিয়া অ্যান্ড মাস কমিউনিকেশন্স’ বিভাগ চালু রয়েছে। যেখানে আন্ডারগ্র্যাজুয়েট ও পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স চালু রয়েছে। মিডিয়া অ্যান্ড মাস কমিউনিকেশন্স-এর অধীনে ‘সাউথ এশিয়ান সিনেমা’ নামে একটি কোর্স থাকলেও ‘সিনেমা ম্যানেজমেন্ট’ নামে কোনো কোর্স পাওয়া যায়নি। তবে দু-একজন স্ক্রিনশটের বিষয়ে লিখেছেন, এটি একটি মিম।

এদিকে বেসরকারি ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের মিডিয়া অ্যান্ড মাস কমিউনিকেশনের একজন সিনিয়র শিক্ষক জানিয়েছেন, আমাদের এখানে এ রকম কোনো কোর্স নেই। আর ওই স্ক্রিনশটটিও সঠিক নয়।

আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ) আবু মিয়া আকন্দ তুহিন মনোয়ার হোসেন ডিপজলের শিক্ষকতার বিষয়টিকে সোশ্যাল মিডিয়া গুজব অভিহিত করে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘একটি অনলাইনে পোর্টালে এমন একটি খবর দেখে আমি বিস্মিত হয়েছে। ইতিমধ্যে আমি প্রোটেস্ট করেছি। এটি সত্য নয়। একটি মিথ্যা তথ্য সুন্দর করে সাজিয়ে ছড়িয়ে কেন দেওয়া হচ্ছে তা বোধগম্য নয়।’

তিনি বলেন, ‘হয়তো মানুষের হাতে অফুরন্ত সময় এ জন্যই হয়তো এমন মিম করছে। আর এই মিম ধরে যাচাই-বাছাই না করেই সংবাদ করে ফেলছে কিছু অনলাইন নিউজ পোর্টাল। সিনেমা ম্যানেজমেন্ট নামে যে আমাদের কোনো কোর্স বা সাবজেক্ট নেই, এটা আমাদের ওয়েবসাইটে দেখলেই তথ্য পেত।’

বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার প্রসঙ্গ শুনে রীতিমতো বিস্ময় প্রকাশ করেন। ডিপজল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এমন কথা ক্যামনে ছড়াইল। আমারে তো কোনো ভার্সিটি থিকা একটা ফোনও দেয় নাই, আর ইন্টারনেটে ছড়াইয়া দেওয়া হইলো। আমি এখন রেস্টে আছি। কয়দিন টানা শুটিং করলাম। এরপর আবার ১৫ তারিখ থিকা ছবির কাজ শুরু হইবো।’

মনোয়ার হোসেন ডিপজল নতুন যে সিনেমাটি নির্মাণ করছেন-তার নাম ‘মানুষ কেন অমানুষ’ সিনেমাটি পরিচালনা করছেন মনতাজুর রহমান আকবর। এর কেন্দ্রীয় চরিত্রে দেখা যাবে ডিপজল, জয় চৌধুরী ও মৌ খানকে। এতে আরো অভিনয় করছেন বড়দা মিঠু, রাশেদা চৌধুরী, জ্যাকি আলমগীর, বকুল সওদাগর, কিরণ কুমার, সেলিম প্রমুখ। ডিপজলের নিজস্ব প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান অমি-বনি কথাচিত্র থেকে সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে। ডিপজলের গল্প অবলম্বনে সিনেমাটির চিত্রনাট্য রচনা করেছেন আব্দুল্লাহ জহির বাবু।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »