Ultimate magazine theme for WordPress.

পাতে পড়ল কই

0

©ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক ♦

কই মাছের নানান বাহারি পদ।  ঘরেই বসে হোক বাঙালীর ভুঁড়ি-ভোজ।  এবার বাড়িতেই বসে উপভোগ করুন কই মাছের এই সুস্বাদু রান্নাগুলো। তাই এবারের রসনায় থাকছে পাতে পড়ল কই।

লাউপাতায় কই পাতুরি

উপকরণ- বড় আকারের কইমাছ ১০ টা, লাউপাতা ১০ টা ( মাছের আকার অনুযায়ী ), কাঁচালঙ্কা ৪ টে বাটা, সরষেবাটা বেশ খানিকটা, হলুদবাটা পরিমাণমতো, সরষের তেল ৬ চা-চামচ, নুন স্বাদ মতো।

প্রণালি- মাছগুলাে কেটে ভাল করে ধুয়ে নুন হলুদ মাখিয়ে রাখুন। লাউপাতার বোঁটাগুলো কেটে ভাল করে ধুয়ে জল ঝরিয়ে নিন। একটা অ্যালুমিনিয়ামের ছড়ানাে পাত্রে তেল গরম করে নিন। এবার মাছের গায়ে ভাল করে সরষে, লঙ্কা, এবং হলুদবাটা, নুন সব একসঙ্গে ভাল করে মাখিয়ে নিন। এই মাছ লাউপাতায় দিয়ে ওপর থেকে একটু সরষের তেল ছড়িয়ে দিন। এবং পাতা মুড়ে দিন। এই পাতাগুলাে এবার আঁচে বসানাে পাত্রে রেখে ঢাকা দিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর ঢাকা খুলে উল্টে দিন। এভাবে দু-পিঠ ভাল ভাঁজা হলে নামিয়ে নিন।

কই মাছের তেলঝাল

উপকরণ- কই মাছ মাঝারি সাইজের, পেঁয়াজবাটা দুটো মাঝারি সাইজের, আদাবাটা, রসুনবার এক চা চামচ করে, হলুদ কুঁড়ো, লঙ্কা গুড়ো, গোটা কাঁচা লঙ্কা, ধনেপাতা, টমেটোকুচি, স্বাদমতো লুন, সরষের তেল একটু বেশি পরিমাণে।

প্রণালী- কইমাছ ভাল করে ধুয়ে নুন হলুদ মাখিয়ে ভেজে নিন। একপর কড়াইতে আবার বেশ খানিকটা তেল গরম করে পেঁয়াজ ভাজতে দিন। পেঁয়াজে হালকা রঙ ধরলে একে একে আদা এবং রসুনবাটা দিয়ে ভাজুন। আদা এবং রসুনবাটা ভাজা হলে একে একে হলুদ, লঙ্কার গুড়ো, টমেটোকুচি এবং অল্প নুন দিয়ে কষান। টমেটো গলে গেলে অল্প জল দিন। ঢাকা লাগিয়ে রাখুন। ঝােল ফুটে উঠলে ভেজে রাখা মাছগুলো দিন। বেশি রস থাকবে না। ঝােল গা-মাখা মাখা হয়ে এলে ধনেপাতাকুচি ছড়িয়ে নামিয়ে নিন।

কই মাছের ফ্রাই
উপকরণ- কই মাছ ছােট সাইজের, আদা-পেঁয়াজ-রসুনবাটা, কাঁচালঙ্কাবাটা, স্বাদমতাে নুন, হলুদগুঁড়াে সামান্য, কনফ্লাওয়ারগুঁড়াে, ডিম, সাদা তেল, লেবুর রস।

প্রণালী- মাছ ভাল করে পরিষ্কার করে নুন এবং লেবুর রস মাখিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। এবার একটি পাত্রে সব বাটা এক গুঁড়ােমশলা, স্বাদমতো নুন দিয়ে একটা মিশ্রণ তৈরি করুন। এই মিশ্রণ মাছের মাখিয়ে আরও কিছুক্ষণ ম্যারিনেট করুন। একটি পাত্রে কর্নফ্লাওয়ার এবং ডিম এবং নুন দিয়ে গুলে ব্যাটার তৈরি করুন। কড়াইতে তেল গরম করে ম্যারিনেট করা মাছগুলো এই ব্যাসরে চুবিয়ে লাল করে ভেজে নিন। এবং গরম গরম পরিবেশন করুন ।

সরষেবাটা দিয়ে কইমাছ

উপকরণ- সরষেবাটা, পেঁয়াজকুচি, গােটা কাঁচালঙ্কা- ৫-৬ টা, কই মাছ মাঝারি সাইজের, স্বাদমতাে নুন, হলুদ গুঁড়ো এক চা- চামচ, ধনেপাতাকুচি, কালােজিরে অল্প এবং সরষের তেল, নারকেল কোরা।

প্রণালী- মাছ ভাল করে ধুয়ে নুন এবং হালকা হলুদ মাখিয়ে রাখুন। সরষের সঙ্গে নুন এবং অর্ধেক কাঁচালঙ্কা দিয়ে বেটে নেবেন। এবার কড়াইয়ে তেল গরম করে কালােজিরে ফোড়ন দিন। তারপর পেঁয়াজ দিয়ে ভাজুন। পেঁয়াজ নরম হলে সরষেবাটা একটু জলে গুলে দিয়ে দিন। বাকি কাঁচালঙ্কাও চিরে দিয়ে দিন। স্বাদমতাে নুন দিন। অল্প জল দিন। ভাল করে ফুটে উঠলে নারকেল কোরা এবং মাছ দিয়ে আবার ফুটতে দিন। ঢাকা দিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। পরে ঢাকা খুলে দেখুন ঝােল কমে এলে ওপর থেকে ধনেপাতা ছড়িয়ে দিন। এবং নামাবার আগে ওপর থেকে একটু কাঁচা সরষের তেল ছড়িয়ে নামিয়ে নিন। এই রান্নায় নারকেল কোরা ইচ্ছা হলে দিতেও পারেন আবার নাও দিতে পারেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »