Ultimate magazine theme for WordPress.

ব্রাজিল ছেড়ে অবৈধ পথে হাজার হাজার অভিবাসী আমেরিকার পথে ।

0

©সাও পাওল / সরদার বাদল খান♦

অতিরিক্ত অর্থ উপার্জনের আশায় দক্ষিণ আমেরিকার শক্তিধর দেশ ব্রাজিল ছেড়ে হাজার হাজার অভিবাসী এখন আমেরিকা মুখী। জানুয়ারি মাসের শুরু থেকেই দেখা যাচ্ছে ব্রাজিলের বাণিজ্যিক নগরী সাও পাওল থেকে অবৈধ পথে আমেরিকার উদ্দেশ্যে হাজার হাজার অভিবাসী ব্রাজিল ছাড়ছেন । ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণের ১০০ দিনের মধ্যেই ১১ মিলিয়ন (১ কোটি ১০ লাখ) অবৈধ অভিবাসীকে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব প্রদানের বিল পাসে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের অঙ্গীকার করেছেন । ২৫ নভেম্বর ২০২০ এনবিসি টিভিতে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বাইডেন বলেন, শুধু তাই নয়, শিশুকালে মা-বাবার হাত ধরে বেআইনি পথে যুক্তরাষ্ট্রে আসার পর যারা বৈধ হতে পারেননি, অথচ এ দেশের আলো-বাতাসে বড় হয়েছেন, শিক্ষা লাভ করেছেন তেমন ৮ লক্ষাধিক তরুণ অভিবাসীর জন্য ওবামা প্রশাসন যে কর্মসূচি (ড্যাকা) শুরু করেছিল, তা অব্যাহত রাখা হবে। অর্থাৎ যাদের বয়স ৩০ বছরের নিচে তারাও পাবেন গ্রিনকার্ড। উল্লেখ্য, ড্যাকা প্রোগ্রামটি বাতিলের নির্বাহী আদেশ জারি করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সুপ্রিম কোর্ট সে আদেশ স্থগিত করে দেয়। অবৈধভাবে বসবাসরত অভিবাসী ইস্যুতে এর আগেও প্রেসিডেন্ট ওবামা একই অঙ্গীকার করে ইউএস সিনেটে কমপ্রিহেনসিভ বিল উত্থাপন করেন তার ডেমোক্র্যাটিক পার্টির মাধ্যমে। রিপাবলিকানদের চরম অসহযোগিতার পরিপ্রেক্ষিতে তা পাস হতে পারেনি।

সেই সংবাদ প্রচারের পর থেকেই অবৈধ পথে আমেরিকার দিকে যাত্রা শুরু করেন দক্ষিণ আমেরিকায় বসবাসরত হাজার হাজার অবৈধ অভিবাসী।

যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ অভিবাসীদের জন্য সর্বশেষ একটি অ্যামনেস্টির ঘটনা ঘটে ১৯৮৭ সালে প্রেসিডেন্ট রিগ্যানের সময়। এরপর কেটে গেছে ৩৩ বছর। এভাবেই বেড়েছে অবৈধ অভিবাসীর সংখ্যা। পর্যবেক্ষকরা অবৈধ অভিবাসী সম্পর্কে বলছেন, জো বাইডেনের অঙ্গীকার অনুযায়ী হয়তো সোয়া কোটির মধ্যে ১ কোটি ১০ লাখের ভাগ্য প্রসন্ন হবে। তবে এ জন্য দরকার হবে প্রতিনিধি পরিষদের মতো ইউএস সিনেটেও ডেমোক্র্যাটের সংখ্যাগরিষ্ঠতা।

অভিবাসীরা অবৈধ পথে যাত্রা করে কতটা সফল হবে তা তারা নিজেরাও জানেনা।তবে উদ্দেশ্য তাদের একটাই যেতে হবে গন্তব্যে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »