Ultimate magazine theme for WordPress.

ফাইনালে ওঠার লড়াই

0

©ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক ♦

দলের গুরুত্বপূর্ণ দুই বিদেশিকে ছাড়াই শেখ রাসেলের বিপক্ষে ১২০ মিনিটের লড়াইটা উতরে গেছে চট্টগ্রাম আবাহনী। সাইফ স্পোর্টিংয়ের বিপক্ষে আজ আরেকটি স্নায়ুক্ষয়ী লড়াইয়ের জন্য তৈরি মারুফুল হকের দল। সাইফ কোয়ার্টার ফাইনালে পেরিয়েছে মোহামেডানকে, টাইব্রেকারে। পল পুটের দলটি আসরে প্রথমবারের মতো উঠে এসেছে সেমিফাইনালে। চট্টগ্রাম আবাহনীর চ্যালেঞ্জটা নিতে তারাও তৈরি।

সাইফ আসরের চার ম্যাচে ১১ গোল করেছে। এবারের আসরে এটিই সর্বোচ্চ। অবশ্য চার দলের একমাত্র গ্রুপটি থেকে তারা উঠে এসেছে। অর্ধেক গোলই করেছে তারা ব্রাদার্সের বিপক্ষে। ৬ গোল করেছিল সেদিন। সাইফের নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড কেনেথ ইকেচুকু ৪ গোল করে এখনো পর্যন্ত সর্বোচ্চ গোলদাতা। হাই প্রফাইল বেলজিয়ান কোচ পল পুটের চ্যালেঞ্জ আজ স্থানীয়দের মধ্যে অন্যতম সেরা মারুফুলের বিপক্ষেও। চট্টগ্রাম আবাহনী কোচ অবশ্য আগের ম্যাচের মতোই এগিয়ে রাখছেন প্রতিপক্ষকে, ‘সাইফকে তারুণ্যনির্ভর দল বলা হলেও তাদের অভিজ্ঞতা কম নয়। ওদের ডিফেন্স লাইনেই তিনজন জাতীয় দলের খেলোয়াড়। ওরা পুরোপুরি একটা পেশাদার দল এবং যথেষ্ট সংগঠিত। সে তুলনায় আমাদের সীমাবদ্ধতা আছে। সবাইকে আমরা একসঙ্গে পাচ্ছি না। তাই এ ম্যাচে সাইফকেই আমি ফেভারিট বলব।’

চট্টগ্রাম আবাহনীর নাইজেরিয়ার মিডফিল্ডার ম্যাথু চিনেডু করোনা কাটিয়ে এ ম্যাচে অবশ্য মাঠে নামার আশা করছেন। চোটে পড়া আরেক বিদেশি, ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার নিক্সন গেলহের্মের খেলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত আজ শেষ মুহূর্তে। শেষ পর্যন্ত ম্যাথু ও নিক্সন দুজনই মাঠে নেমে পড়লে অবাক হওয়ার থাকবে না। তবে অসুস্থতা থেকে ফিরে, চোট কাটিয়ে তাঁরা কেমন করবেন, তা নিয়ে সংশয় থাকছেই।

মারুফ অবশ্য স্থানীয়দের ব্যবহারেই মুনশিয়ানা দেখিয়েছেন আগের ম্যাচে। রাকিব হোসেন ও মান্নাফ রাব্বী মিলে ম্যাচটি বের করে নিয়েছেন শেখ রাসেলের বিপক্ষে। মোহামেডানের বিপক্ষে সাইফের কোয়ার্টার ফাইনালটাও ছিল স্নায়ুক্ষয়ী। টাইব্রেকারে সেমির টিকিট পাওয়ার পর এ ম্যাচে নতুন উদ্যমেই ঝাঁপানোর কথা। সাইফের জাতীয় দলে খেলা ডিফেন্ডার রহমত মিয়াও স্পষ্ট করে বলেছেন তাঁরা চ্যালেঞ্জটা নিতে তৈরি, ‘আমরা শিরোপায় চোখ রেখে খেলছি। কালও মাঠে নামব সেই মনোভাব নিয়েই। যত দূর প্রয়োজন হয় যাব, তবে আমরা জিতে মাঠ ছাড়তে চাই।’ তাঁর চোখে ২০১৭-তে ফাইনাল খেলা চট্টগ্রাম আবাহনীই বড় দল, সে জন্য চাপটা রাখছেন তাদের ওপরই, ‘চট্টগ্রাম আবাহনী অবশ্যই বড় দল এবং আমাদের চেয়ে পুরনোও। চাপটা তাই ওদের ওপরই থাকবে। আমরা আমাদের সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করব।’

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আসরের প্রথম এই সেমিফাইনাল মাঠে গড়াবে আজ বিকেল ৪টায়। গতবার রহমতগঞ্জ, পুলিশ সেমিফাইনালে উঠে চমক দেখিয়েছিল। বসুন্ধরা কিংস ও আবাহনীর সঙ্গে চট্টগ্রাম আবাহনী ও সাইফের উঠে আসা প্রত্যাশামতোই। যারা ফাইনালে খেলারও সামর্থ্য রাখে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »