Ultimate magazine theme for WordPress.

প্রবাসীর স্ত্রীর নগ্ন ভিডিও ধারণ করে ৫ লাখ হাতিয়েছেন মঞ্জুর

0

©ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক ♦

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বিয়ের প্রলোভনে প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ভিডিও-ছবি দিয়ে জিম্মি করে টাকা আদায় এবং প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগে বখাটে যুবক মঞ্জুর রহমানকে (২৬) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) রাত ১০টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতার মঞ্জুর রহমান উপজেলার ভাওড়া ইউনিয়নের হাড়িয়া গ্রামের ইন্নছ আলীর ছেলে।

পুলিশ জানায়, স্বামী বিদেশ থাকার সুবাদে হাড়িয়া গ্রামের ইন্নছ আলীর ছেলে মঞ্জুর রহমানের কুনজর পড়ে ওই গৃহবধুর ওপর। তাকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন। কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় হুমকি এবং ভয়ভীতি দেখাতেন। একপর্যায় ওই যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে যান ওই গৃহবধূ। প্রেমের ফাঁদে ফেলে তার বাড়িতে গিয়ে কৌশলে ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করেন এবং আপত্তিকর ছবি তোলেন। পরে গৃহবধূ তার ভুল বুঝতে পেরে মঞ্জুরকে তার পথ থেকে সরে দাঁড়াতে বললে তিনি অস্বীকৃতি জানান।

পরে ওই ভিডিও দিয়ে ব্ল্যাকমেল করে মঞ্জুর গৃহবধূর কাছে টাকা দাবি করেন। গৃহবধূ কয়েক দফায় তাকে পাঁচ লাখ টাকা দেন। কিন্তু এতেও মঞ্জুর ক্ষান্ত হননি। তিনি পুনরায় বিদেশে যাওয়ার জন্য ছয় লাখ টাকা দাবি করেন। তা নাহলে সব ভিডিও ও ছবি ভাইরাল করে দেয়ার হুমকি দেন। টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে প্রবাসে থাকা ওই গৃহবধূর স্বামীকে ভিডিও ও ছবির কথা বলে দেন মঞ্জুর। এই ভিডিও ও ছবি তিনি গৃহবধূর কয়েকজন আত্মীয়ের ফেসবুক মেসেঞ্জারে পাঠান।

এ ঘটনার পর স্বামীর বাড়ি থেকে শিশুসন্তান নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যেতে বাধ্য হন প্রতারণার শিকার ওই গৃহবধূ। এলাকায় ন্যায়বিচার না পেয়ে গত ২১ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মির্জাপুর আমলি আদালতে মঞ্জুর রহমানকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। মামলা হওয়ার পর মঞ্জুর রহমান ও তার সহযোগীরা প্রবাসীর স্ত্রী, তার পরিবারকে হত্যাসহ নানাভাবে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখান।

পরিবারের এবং নিজের নিরাপত্তা চেয়ে গত ১২ অক্টোবর অসহায় গৃহবধু মির্জাপুর থানায় আবার সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। জিডির পর প্রসিকিউশন করে আদালতে পাঠানো হয়। তার ভিত্তিতে আদালত মঞ্জুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। বুধবার রাত দশটার দিকে মির্জাপুর থানা পুলিশ মঞ্জুরকে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে।

এ বিষয়ে মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এবং মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর অবস্থার বিবস্ত্র ছবি ভাইরাল হয়েছে। গৃহবধূ পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা ও থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতারি পরোয়ানা মূলে মঞ্জুর রহমানকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »