Ultimate magazine theme for WordPress.

জাপান এয়ারলাইনসে আর ‘লেডিস অ্যান্ড জেন্টেলম্যান’ বলা হবে না

0

©ক্রাইম টিভি বাংলা অনলাইন ডেস্ক ♦ 

আগামী মাস থেকে জাপান এয়ারলাইনসের কোনো উড়োজাহাজে উঠলে আপনার কাছে আবহটা নতুন লাগতে পারে। আপনি আর ‘লেডিস অ্যান্ড জেন্টেলম্যান’ শব্দগুলো শুনবেন না। ১ অক্টোবর থেকে এর পরিবর্তে শোনা যাবে ‘অ্যাটেনশন অল প্যাসেঞ্জার্স’ কিংবা যাত্রীদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য বলা হবে ‘এভরিওয়ান’।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম মাইনিচি জানিয়েছে, মূলত নিরপেক্ষ লিঙ্গের ধারণা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যেই ‘লেডিস অ্যান্ড জেন্টেলম্যান’ শব্দযুগল বাদ দিচ্ছে জাপানের জাতীয় উড়োজাহাজ সংস্থা।

বিশ্বের হাতেগোনা কয়েকটি উড়োজাহাজ সংস্থার মধ্যে অন্যতম জাপান এয়ারলাইনস, যারা অভিবাদনের ক্ষেত্রে নিরপক্ষে লিঙ্গের ধারণা চালু করছে। যদিও এটি ব্যবহৃত হবে শুধুই ইংরেজীতে ঘোষণার সময়।

জাপান এয়ারলাইনসের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে অবশ্য দেশে তেমন কোনো আলোড়ন সৃষ্টি হয়নি। হিরোশিমার সুদো ইউনিভার্সিটির সমাজবিজ্ঞানী কাজুয়া কাওয়াগুচি এ নিয়ে বলেন, ‘এটা নিয়ে মানুষের মাথাব্যথা নেই, কেননা ইংরেজী ঘোষণার ক্ষেত্রে যে পরিবর্তন আনা হচ্ছে তা জাপানি ভাষার যাত্রীরা বেশিরভাগই বুঝবেন না কিংবা এটি খেয়ালও করবেন না। তবে আমি মনে করি, তাদের মতো বড় কোম্পানির ক্ষেত্রে এই অনুশীলনটা চালু করা দারুণ ব্যাপার। পরে মাঝারি কিংবা ছোট আকারের কোম্পানিও তাদের অনুসরণ করবে।’

এয়ার কানাডা ও ইজিজেট গত বছর নিরপেক্ষ-লিঙ্গের অভিবাদন চালু করে। বার্তাসংস্থা রয়টার্সের কাছে দেয়া এক বিবৃতিতে জাপানি এয়ারলাইনস বলছে তারা একটি ‘ইতিবাচক আবহ’ সৃষ্টি করতে চাইছেন যেখানে প্রত্যেকের সঙ্গে ‘শ্রদ্ধাপূর্ণ আচরণ’ করা হবে। সংস্থাটির মুখপাত্র মার্ক মোরিমোতো বলেন, ‘আমাদের অঙ্গীকার— লিঙ্গ, যৌন দৃষ্টিভঙ্গি, লৈঙ্গিক পরিচয় কিংবা ব্যক্তিগত বৈশিষ্ট্যের আলোকে কোনো ভেদাভেদ চাই না।’

সমলিঙ্গের মধ্যে বিয়ে জাপানে আইনগতভাবে বৈধ নয়। তবু এক সমীক্ষায় দেখা যায়, দেশটিতে এর পক্ষে যথেষ্ট সমর্থন রয়েছে এবং জাপানি এয়ারলাইনসও সমকামীবান্ধব। গত বছর জাপানে ১৩টি সমলিঙ্গের যুগল বিয়ের অধিকার চেয়ে সরকারের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিয়েছে।

সূত্র: বিবিসি

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »