Ultimate magazine theme for WordPress.

প্রথম প্রান্তিকে রায়ানএয়ারের ক্ষতি সাড়ে ১৮ কোটি ইউরো

নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পুরো বিমান পরিবহন খাতকে অভূতপূর্ব ক্ষতির মুখে ঠেলে দিয়েছে।

0

২০২১ অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে ১৮ কোটি ৫০ লাখ ইউরোর নিট ক্ষতির কথা জানিয়েছে রায়ানএয়ার। তবে এ ক্ষতি পূর্বাভাসের চেয়ে কম। কারণ বাজার বিশ্লেষণে রেফিনিটিভের বিশ্লেষকরা জানিয়েছিলেন, জুনে শেষ হওয়া প্রথম প্রান্তিকে নিট ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াতে পারে ২০ কোটি ৫০ লাখ ইউরো। খবর সিএনবিসি।

সাশ্রয়ী বিমান পরিবরহন সংস্থাটি সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, অর্থবছরের বাকি সময় তাদেরকে বেশ চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে যেতে হবে। কারণ কভিড-১৯-এর সংক্রমণ আর কত দিন স্থায়ী হবে, তা এখনই বলা যাচ্ছে না। তাছাড়া শরতের শেষ নাগাদ ইউরোপজুড়ে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের সম্ভাবনা রয়েছে, যা রায়ানএয়ারের ব্যবসার জন্য বর্তমানে সবচেয়ে বড় শঙ্কা।

নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পুরো বিমান পরিবহন খাতকে অভূতপূর্ব ক্ষতির মুখে ঠেলে দিয়েছে। প্রায় চার মাস ধরে গ্রাউন্ডেড অবস্থায় ছিল রায়ানএয়ারের পুরো উড়োজাহাজ বহর। লকডাউন পদক্ষেপ শেষে ইউরোপে ফের অর্থনৈতিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ফলে ধীরে ধীরে এয়ারলাইনসগুলো ফ্লাইট পরিচালনায় ফিরছে। কিন্তু এখনো সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা ও কোয়ারেন্টিনের মতো পদক্ষেপের কারণে তাদের অনেক কার্যক্রম সীমিত হয়ে পড়েছে। সংস্থাটি জানায়, ২০২০-২১ অর্থবছরে তাদের ট্রাফিকের পতন হবে ৬০ শতাংশ। কিন্তু মহামারী ঘিরে অনিশ্চয়তার কারণে তারা বছরের বাকি সময় নিয়ে কোনো স্থির নির্দেশনা দিতে পারছে না।

এয়ারলাইনসটি আরো জানায়, গত প্রান্তিকটি তাদের ৩৫ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে কঠিন সময় ছিল। কার্যক্রম স্থগিত থাকায় এ প্রান্তিকে তারা ব্যয় কর্তন করেছে প্রায় ৮৫ শতাংশ। এর মধ্যে অন্যতম হলো আলোচনার মধ্য দিয়ে কর্মীদের বেতন কর্তন। আশার কথা, ১ জুলাই থেকে রায়ানএয়ার ফের অধিকাংশ রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করেছে। তবে এক্ষেত্রে সংস্থাটিকে ভোগাবে স্পেনের ফ্লাইটের যাত্রীদের ওপর ব্রিটেনের পুনরায় কোয়ারেন্টিন আরোপ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Translate »